পাইকগাছায় কালিমন্দির ও শ্মশানের জায়গাদখলের অভিযোগ

  

পিএনএস, পাইকগাছা (খুলনা) : খুলনার পাইকগাছা উপজেলার সিলেমানপুর মৌজায় কপোতাক্ষ নদের পাশে জায়গায় নির্মিত কালিমন্দির ও শ্মশানের জায়গাসহ চরভরাটি প্রায় ৩০ বিঘা জমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সার্ভেয়ারকে সরকারি সম্পত্তি উদ্ধারের ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নির্দেশ দিয়েছেন। অভিযোগে জানা যায়, পাইকগাছা উপজেলার সিলেমানপুর মৌজার এক নম্বর খাস খতিয়ানে ৪২৪ দাগে আনুমানিক ৩০ বিঘা জমি কথিত ভূমিদস্যু বাখের মোল্লা জবর-দখল করে নিয়েছেন।
ওই সম্পত্তি উদ্ধারের ব্যাপারে এলাকাবাসীর আবেদনের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদ-উল-মোস্তাক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছেন বলে সাংবাদিকদের জানান। তিনি সরকারি সম্পত্তি উদ্ধারের জন্য সার্ভেয়ারকে নির্দেশ দিয়েছেন।
এলাকাবাসী জানান, ৩-৪ বছর আগে উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান রশীদুজ্জামান, সাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ কবিরউদ্দীন কপোতাক্ষের চরভরাটি জায়গায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য শ্মশান ও কালিমন্দির নির্মাণের জন্য ৫৯ শতক জমি নির্দিষ্ট করে দেন। যেখানে ৪০ দিনের কর্মসূচির লোক দিয়ে রাস্তাসহ শ্মশান ও মন্দিরের কাজ করানো হয় বলে স্থানীয় ইউপি সদস্য এজাহার আলী মোড়ল জানান।
তবে অভিযুক্ত বাখের মোল্লা দাবি করেন, ‘আমি কোনো মন্দির, শ্মশান বা সরকারি জায়গা জবরদখল করিনি। আমার ছেলেরা তিন একর সম্পত্তি ভোগ দখল করছে। যার কাগজপত্র আছে।’
তবে তিনি সম্পত্তির কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। স্থানীয় বাসিন্দা গৌতম ঘোষ ও জুলফিকার সরদার বলেন, বাখের মোল্লা একজন ভূমিদস্যু ও মামলাবাজ। তার বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে তাদের বিরুদ্ধে থানা বা আদালতে ফৌজদারি মামলা দিয়ে হয়রানি করেন।

পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech