যশোরে দুদল সন্ত্রাসীর কথিত বন্দুক যুদ্ধে বেনাপোলের রিপন নিহত

  


পিএনএস, বেনাপোল: যশোরে দুদল সন্ত্রাসীর কথিত বন্দুকযুদ্ধকালে বেনাপোলের রিপন হোসেন(৩০)নিহত হয়েছেন। সে বেনাপোল ছোটআচড়া গ্রামের আলহাজ্জ হাবিবুরর রহমান হাবি সর্দ্দারের ছেলে। বেনাপোল স্থলবন্দরের আনসার সদস্যকে হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামী। বৃহস্পতিবার ভোররাতে যশোর-মাগুরা মহাসড়কের পাঁচবাড়িয়া এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পুলিশ নিহত যুবকের লাশ উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে রেখেছেন।

যশোর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস হোসেন জানান, যশোর-মাগুরা মহাসড়কের পাঁচবাড়িয়া স্কুলের সামনে দুদল সন্ত্রাসী বন্দুকযুদ্ধে লিপ্ত এমন খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবককে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, নিহত যুবক বেনাপোলের ছোট আঁচড়া এলাকার বাসিন্দা। বন্দরের পণ্য চোর সিন্ডিকেটের হোতা রিপন।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এম আব্দুর রশিদ জানান, গুলিবিদ্ধ যুবককে হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়। তার মাথার ডানপাশে এক রাউন্ড গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

ওসি আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, এক রাউন্ড গুলি ও একটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য-গত ১৫নভেম্বর রাতে বন্দরে নিরাপত্তা কর্মি আনসার সদস্য ফিরোজ হোসেনকে কুপিয়ে আহত করে রিপনসহ একদল। পোর্ট থানার রিপন সহ ৪জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়। আসামীরা সবাই ১৩দিনের ব্যাবধানে জামিন লাভ করেন। বুধবার রাতে ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা যান আনসার সদস্য ফিরোজ।

নিহতের পিতা হাবিবুর রহমান হাবি বলেন কোট থেকে জামিনে আসেন রিটপ সহ ৪জন। আইনের প্রতি তারা শ্রদ্ধাশীল-তবে কতিথ ক্রস ফায়ারের ঘটনায় পুত্র হত্যা ঘচনাটি দুঃখজনক।

নিহতের বোন ও প্রতিবেশীরা বলেন-পুলিশ রাস্তা থেকে ধরে নিল। ক্রসে মারা গেল সে। সরকারের দৃষ্টি আকর্ষন করেন তারা।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech