সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে অনবদ্য বিপ্লবের নাম কাস্ত্রো - ন্যাপ

  

পিএনএস: ফিদেল কাস্ত্রো কেবল তার দেশের নেতাই ছিলেন না, অন্যান্য দেশের নিপীড়িত মানুষের সংগ্রামে পাশে দাঁড়িয়েছেন অভিমত প্রকাশ করে বাংলাদেশ ন্যাপ’র স্মরণ সভায় আলোচকবৃন্দ বলেছেন, সারাবিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের কাছে বিপ্লবের প্রতীক ছিলেন ফিদেল কাস্ত্রোা। যুক্তরাষ্ট্রের খুব কাছে থেকেও তিনি কিউবার বিপ্লবকে সফল করেছেন।

শুক্রবার বিকালে নয়াপল্টস্থ যাদু মিয়া মিলনায়তনে 'বিপ্লবী ফিদেল কাস্ত্রোর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন’ উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত স্মরণসভায় নগর যুগ্ম আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আনছার রহমান শিকদারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া। আলোচনায় অংশগ্রহন করেন আলোচনায় অংশগ্রহন করেন ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ফারুক হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব মো: নুরুল আমান চৌধুরী, অর্থ সম্পাদক আহসান হাবিব খাজা, সম্পাদক মতিয়ারা চৌধুরী মিনু, নগর সদস্য সচিব মোঃ শহীদুননবী ডাবলু, যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, বাসন্তী বরুয়া বাবলী, সদস্য আক্তার হোসেন, আবদুল্লাহ আল কাউছারী, ছাত্রনেতা সোলায়মান সোহেল প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেছেন, সাম্রাজ্যবাদী শক্তির চাপিয়ে দেওয়া অন্যায় অবরোধ, সকল ষড়যন্ত্রকে নস্যাৎ করে ফিদেল কাস্ত্রো কিউবার বিপ্লবকে শুধু রক্ষাই করেননি, কিউবাকে বিস্ময়করভাবে অগ্রসর করে নিয়ে গেছেন। সাম্রাজ্যবাদী অপশক্তি তাকে বার বার হত্যার প্রচেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়েছে। বিপ্লবী দৃঢ়তা নিয়ে সাম্রাজ্যবাদী ও আধিপত্যবাদী শক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন। সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে অনবদ্য বিপ্লবের নাম ফিদেল কাস্ত্রো। তিনি বলেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ফিদেল কাস্ত্রোর নিঃশর্ত সমর্থন এবং একেবারে প্রথম পর্যায়েই স্বাধীন বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেওয়ার ঘটনা এদেশের মানুষ চিরকাল স্মরণ করবে। তিনি ছিলেন মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানী ও বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু।

তিনি আরো বলেন, ফিদেল কাস্ত্রো যুগে যুগে অধিকার আদায়ের সংগ্রামীদের অনুপ্রেরণা। পৃথিবীর পথে পথে মুক্তিকামী জনতা তার স্বপ্নকে বয়ে নিয়ে যাবে নতুন শতাব্দীতে।

কাজী ফারুক হোসেন বলেছেন, নির্যাতিত-নিপিড়ীত মানুষের অধিকার আদায়ে ফিদেল কাস্ত্রো ছিলেন পাহাড়ের মতো অবিচল। বিশ্বের নিপীড়িত ও আক্রান্ত মানুষের পাশে তিনি দৃঢ়ভাবে দাঁড়িয়েছেন। তার লড়াই কিউবায় সীমাবদ্ধ থাকেনি, ছড়িয়ে পড়েছে সারাবিশ্বে।

সভাপতির বক্তব্যে মোঃ আনছার রহমান শিকদার বলেছেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের প্রতি ফিদেল কাস্ত্রো ও তার দলের অকুণ্ঠ সমর্থনের কথা বাংলাদেশের জনগণ চিরদিন কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে। কমরেড ফিদেল কাস্ত্রো বিশ্বের নিপীড়িত, নির্যাতিত, মুক্তিকামী মানুষের মুক্তির লড়াইয়ে বেঁচে থাকবেন। আধিপত্যবাদী ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তিনি প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন।

পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech