দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা মরুভূমির প্রতিচ্ছায়া

  

পিএনএস, মোঃ সোয়েব আখতার, খানসামা (দিনাজপুর) : দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় অবস্থিত খানসামা ডিগ্রী কলেজ জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলন চলচ্ছে। গত রোববার ৮ তারিখ খানসামায় হরতালের ডাক দেয়া হয়। ঐই দিন রাত ২ টার দিকে ৫ জন নেতাকে খানসামা থানার সহযোগিতা নিয়ে গ্রেফতার করে ডিভি পুলিশ, সাথে ছিলেন এস,পি। তবুও তারা আন্দোলন থেকে সরে যায় না। কিন্তু খানসামা থানার পুলিশ তাদের হরতালে বাধা দিলে সংঘর্ষ হয় এবং খানসামা থানা ভাঙ্গচুর হয়। তাতে আহত হয় ২০ জন, গ্রেফতার হয় ১৬ জন। খানসামা থানা পুলিশ জানায় থানা ভাঙ্গচুরের এর জন্য খানসামা থানার পুলিশেরা বাদী হয়ে ২ টি মামলা করে।

১ টি মামলায় ৩৭ জনের তালিকা করা হয়, অপর মামলায় ৪১ জনের তালিকা করা হয় এবং অজ্ঞাত করা হয় ৭২৮ জনকে। প্রত্যেক রাতে প্রতিটি বাড়ি তল্লাশি করা হয় এবং প্রত্যেক বাড়ি থেকে ১০ বছরের শিশু থেকে শুরু করে সকল বৃদ্ধ পুরুষ মানুষকে গ্রেফতার করে। যার নাম খানসামা বাসী দিয়েছে ২৫ মার্চের কালো রাতের মতো “অপারেশন সার্চ লাইট”। যার আতঙ্কে এলাকা ছেড়ে গেছে খানসামা প্রোপারের সকল শিশু-যুবক-বৃদ্ধ উভয় বয়সের পুরুষ মানুষ। ৫ দিন হয়ে গেল তবুও খানসামা প্রোপারে কোনো মানুষ দেখা যায় নি এবং দোকানপাঠও খুলে নি।

খানসামা যেন মরুভূমিতে পরিণত হয়েছে। খানসামা থানার ওসি আব্দুল মতিন প্রধান জানায় যে, কোনো মানুষকে বিনা কারণে হয়রানি করা হবে না, আপনারা নিজ নিজ বাড়িতে আসতে পারেন এবং দোকানপাঠ খুলতে পারেন। আর কোনো দালালের চক্রে পড়বেন না। বলবে আপনার নামটা থানায় দেখে আসলাম, আপনি কয়েক হাজার টাকা দেন আমি আপনার নাম বাদ দিচ্ছি। আপনাদের আতঙ্কের কোনো কিছু নাই, আপনারা নির্সন্দেহে বাড়ি আসতে পারেন এবং আবার আগের মতো করে চলাচল করতে পারেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি খানসামা এলাকাবাসীর আকুল আবেদন যে, তাদের উপর যেন আর কোনো অন্যায় না হয়, তাদের বিনা কারণে গ্রেফতার না করে এবং তাদের প্রাণের দাবি খানসামা ডিগ্রী কলেজকে জাতীয়করণ করে তাদের সহায় হবেন।

পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech