সরিষাবাড়ীতে লিলি হত্যায় পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার ১

  

পিএনএস: জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে মাদকাসক্ত ভাতিজার ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ইতালি প্রবাসী লিলি আক্তার (৪০) হত্যার ঘটনায় ঘটনায় মামলা হয়েছে। নিহতের স্বামী ঈমান আলী বাদী হয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে মাদকাসক্ত ভাতিজা সুমন মিয়াকে (২৫) প্রধান আসামি করে পাঁচজনের বিরুদ্ধে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

ওই মামলায় আজ শুক্রবার সকালে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, সরিষাবাড়ীর সাতপোয়া ইউনিয়নের চর সরিষাবাড়ী গ্রামের ঈমান আলীর স্ত্রী ইতালি প্রবাসী লিলি আক্তার গত ১ জানুয়ারি স্বপরিবারে দেশে আসার পর বুধবার সন্ধ্যায় প্রতিবেশীদের সঙ্গে দেখা করতে যান। ওই সময় তারই ভাতিজা সাতপোয়া গ্রামের কটু মিয়ার ছেলে সুমন সরিষাবাড়ীর টিটিডিসি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছনে তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, সাতপোয়া গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের মেয়ে তিন সন্তানের জননী লিলি আক্তার প্রায় ১০ বছর ধরে স্বপরিবারে ইতালি প্রবাসী। তাঁর ভাই ঘাতক সুমনের বাবা কটু মিয়াকেও তিনি ইতালীতে নিয়ে যান। গত ১ জানুয়ারি স্বপরিবারে তিনি দেশে এসে বুধবার রাতে বাবার বাড়িতে বেড়াতে যান। এ সময় তিনি প্রতিবেশীদের সঙ্গে দেখা করতে বের হলে ভাতিজার হাতে খুন হন। সুনির্দিষ্ট কারণ উদ্ঘাটন না হলেও ঘাতকের সঙ্গে নিহতের চার শতাংশ জমি নিয়ে বিরোধ ছিল বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি রেজাউল ইসলাম খান বলেন, "থানায় হত্যা মামলা হয়েছে। মূল আসামি গ্রেপ্তার না হলেও আজ শুক্রবার সাতপোয়া গ্রামের আইউব আলীর ছেলে সিরাজ হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি আসামি ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। "


পিএনএস/বাকিবিল্লাহ্

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech