রংপুরে গৃহবধূ হত্যায় স্বামী-দেবরের ফাঁসি

  

পিএনএস ডেস্ক : রংপুরে ১৪ বছর আগে এক গৃহবধূকে হত্যার দায়ে স্বামী ও দেবরকে ফাঁসি দিয়েছে আদালত। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রংপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আবু জাফর মোহাম্মদ কামরুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন নিহতের স্বামী নৃপেণ চন্দ্র রায় (৩৬) ও দেবর লক্ষণ চন্দ্র রায় (৩৫)। তাদের বাড়ি রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার সয়ার ইউনিয়নের শেখপাড়া গ্রামে।

মামলার নথির বরাত দিয়ে পিপি আখতারুজ্জামান জানান, যৌতুকের দাবিতে নৃপেণ চন্দ্র, তার ভাই লক্ষণ চন্দ্র ও মা সৌমিত্রী রায় শলাপরামর্শ করে ২০০৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি ভোরে গৃহবধূ কল্পনা রানীকে (১৯) পিটিয়ে হত্যা করেন।

পরের দিন সকালে কল্পনা রানীর জার বড়ভাই সতীশ চন্দ্র অধিকারি তারাগঞ্জ থানায় নৃপেণ চন্দ্র, লক্ষণ চন্দ্র ও সৌমিত্রী রায়ের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন।

মামলা হওয়ার পর পুলিশ কল্পনার স্বামী নৃপেণকে গ্রেফতার করলে তিনি আদালতে অপরাধ স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। আর লক্ষণ ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিলেন।

তদন্ত শেষে একই বছরের ১৫ মে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তারাগঞ্জ থানার এসআই মমতাজ উদ্দিন তিন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।

আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) আখতারুজ্জামান পলাশ জানিয়েছেন, রায় ঘোষণার সময় নৃপেণ চন্দ্র আদালতে হাজির ছিলেন।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech