নীলফামারীতে নববধুর মরদেহ উদ্ধার

  

পিএনএস, নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি : বিপাশা ঋষি(১৯) নামের এক নববধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় জেলা সদরের চড়াইখোলা ইউনিয়নের কিছামত চড়াইখোলা গ্রামের স্বামী মাধব ঋষির (২৩) বাড়ির ঘর হতে পুলিশ এই নববধুর মরদেহ উদ্ধার করে। এলাকাবাসী জানায় ওই নববধুর শ্বশুর কৃষ্ণনাথ ঋষি, শাশুড়ি মাধবী ঋষী ও স্বামী মাধব ঋষী ঘরে লাশ ফেলে পালিয়ে গেছে।

হত্যর শিকার নববধু বিপাশার বাবা জেলার জলঢাকা উপজেলার শৌলমারী গ্রামের বাসিন্দা বাচ্চু রাম ঋষী অভিযোগ করে জানায় তার মেয়ের গত ৫ মাস আগে বিয়ে হয়। ঘটনার দিন রবিবার ভোরে তার মেয়ে মোবাইলে তাকে জানায় তাকে তার স্বামীসহ শ্বশুড়বাড়ির লোকজন মারধর করে ঘরে আটকে রেখেছে।

এই খবরে তিনি সকাল ১১টায় তার মেয়ের বাড়িতে গেলে ঘরে তালা দেখে সদর থানায় এসে লিখিত অভিযোগ করে। তিনি বলেন তারা আমার মেয়েকে হত্যা করে ঘরে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়।

সদর থানার ওসি বাবুল আকতার জানান, দুপুরে পুলিশ ফোর্স ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই বাড়িতে তালা দেখতে পায়। পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও গ্রামবাসীকে সঙ্গে নিয়ে ঘরের তালা ভেঙ্গে নববধুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ সময় মরদেহটি ঘরের তীরে ঝুলছিল। শরীরে আঘাতের চিহৃ পাওয়া যায়। বিকাল সাড়ে ৫টায় মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয়েছে। এটি হত্যা না আতœহত্যা তা ময়না তদন্তের পর জানা যাবে।

সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান মানিক বসুনিয়া জানান, ওই নববধুর স্বামী একজন ঢোলবাদক। তারা সকলে পলাতক রয়েছে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech