লক্ষ্মীপুরে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ২ ইউপি চেয়ারম্যানের ক্ষোভ

  

পিএনএস, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আহসানুল করিম রিপন ও মান্দারী ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহিম তাদের বিরুদ্ধে সম্প্রতি বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে জেলা প্রশাসকের কাছে।

গত রোববার জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে পশু জবাই ও বর্জ্য অপসারণ বিষয়ক জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের নিয়ে সভায় এসব ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়।

এসময় জেলা প্রশাসক হোমায়রা বেগম, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মীর শওকত হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক শেখ মুর্শিদুল ইসলাম, রায়পুর পৌর সভার মেয়র ইসমাইল হোসেন, রামগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আকম রুহুল আমিন, মেয়র আবুল খায়ের পাটোয়ারী প্রমুখ।

এসময় দত্তপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আহসানুল করিম রিপন তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের ঘটনায় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ জানিয়ে বলেন, সাংবাদিকদের জ্বালায় চেয়ারম্যান হিসেবে কাজ করতে পারছিনা।

তারা বিভিন্ন কারন অকারণে সংবাদ প্রকাশ করে আমার সামাজিক মর্যাদা ক্ষুন্ন করেছে। তিনি এ ঘটনায় সাংবাদিক ও চেয়ারম্যানদের সাথে একটি মতবিনিময় সভায় আয়োজন করার জন্য জেলা প্রশাসকের নিকট অনুরোধ জানান।

অপর দিকে মান্দারী ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের প্রতি ক্ষোভ জানিয়ে বলেন, বিগত ১৫-২০ বছর পূর্বে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি তখন এতো সাংবাদিক ও পত্রিকায় সংবাদ দেখেনি। কিন্তু এখন সব জায়গায় সাংবাদিকদের আনা গোনা দেখা যায়।

তিনি বলেন, আগে যদি জানতাম এরকম ঘটনায় হবে তা হলে আমি চেয়ারম্যানের প্রার্থী হতাম না। তিনি প্রকৃত সাংবাদিক চিহ্নিত করে কার্ড/ পরিচয়পত্র প্রদানের জেলা প্রশাসকের নিকট অনুরোধ জানান।

এসময় জেলা প্রশাসক হোমায়রা বেগম বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের উদ্দেশে বলেন, জনপ্রতিনিধিরা এলাকায় বিভিন্ন ধরনের কাজ করবে।

সালিশ বিচার করবে তবে এ গুলোর নামে আইন ভঙ্গ করে কোন বিচার করতে পারেনা। তিনি আইনের নিয়ম অনুযায়ী চেয়ারম্যানদের দায়িত্ব পালন করার আহবান জানান। ওই বৈঠক উপস্থিত থাকা এক জনপ্রতিনিধি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য যে, দত্তপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আহসানুল করিম রিপন এক মাটিকাটা শ্রমিককে প্রকাশ্যে বেতাঘাত ও নাকে খত দেওয়ার ঘটনায় বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। পরে এ ঘটনায় একটি রুল জারি করা হয়।

এ ছাড়া মান্দারী উচ্চ বিদ্যালয়ের বিভিন্ন ধরনের অনিয়মের অভিযোগে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সংবাদ হয়। ওই সব ঘটনায় চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের প্রতি ক্ষুব্দ হয়। ইউপি চেয়ারম্যান ওই বিদ্যালয়ের সভাপতি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech