হাতির পিঠে বর, ঘোড়ার গাড়িতে এলো বউ

  

পিএনএস, নিজস্ব প্রতিবেদক : হাতির পিঠে বর সেজে বিয়ে করতে গেলেন বর। একটি না, সঙ্গে দুইটি হাতি আর ঘোড়ার গাড়ী সাজিয়ে রাজকীয়ভাবে বিয়ে করতে গেলেন তানোর পৌর এলাকার আমশো গ্রামের হাসান আলী। বিয়ে একই উপজেলার বনকেশর চকপাড়া গ্রামে এমাজ উদ্দীনের মেয়ে জেসমিন আরা’র সঙ্গে। ব্যতিক্রম বিয়ের এমন আয়োজনে রব ও কণের বাড়ীর পাশাপশি রাস্তার উৎসুক জনতা হুমড়ী খেয়ে পড়ে এক নজর দেখার জন্য।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঘোড়ার গাড়িতে বিয়ে করে বর যখন নববধূকে বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছিলেন তখন পৌর সদরের তানোর ও গোল্লাপাড়া হাট-বাজরে শত শত উৎসুক মানুষ ভীড় করে দেখেন।

চমৎকার সেই দৃশ্য, লাল শাড়িতে লাজুক হেসে কনে বসে আছে ঘোড়া গাড়ীতে পাশে বর। দিনটি শুক্রবার থাকায় কণের বাড়িতে বরকে দেখার পাশাপাশি হাতি দু’টি দেখতে মানুষের কমতি ছিল না। ঘোড়ার গাড়ীতে চড়ে বউ যাচ্ছে তার শ্বশুরবাড়ি- দৃশ্যটি মুহূর্তেই মনে করিয়ে দেয় চিরায়িত গ্রাম বাংলার সেই ঐতিহ্যের কথা।

বরপক্ষের সাথে কথা বলে জানা যায়, তানোর পৌর এলকার আমশো গ্রামের মৃত আলতাব হোসেন ছেলে হাসান আলী তার অনেক দিনের শখ ছিলো বউকে ঘোড়ার গাড়ীতে চড়িয়ে ঘরে তুলবেন। কিন্তু হঠাৎ করে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দু’টি হাতি দেখতে পেলে তার হাতি নিয়ে বিয়ে করতে যাওয়ার সাধ জাগে। যা ইচ্ছে তা পূরণ করার জন্য হাতির মাউথদের সাথে চুক্তি করে আজ শুক্রবার সকালে হাতির পিঠে চড়ে বিয়ে করতে যান হাসান। যদিও এখন ঘোড়াগাড়ী পাওয়া গেলও হাতি পাওয়া কষ্টসাধ্য ও ব্যয়বহুল সে তুলনার প্রাইভেটকার ভাড়া করা সহজ বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তানোর আব্দুল করিম সরকার ডিগ্রী কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক হাসান আলী। শুধু শখ পূরণেই তার এই ব্যতিক্রম আয়োজন।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল



 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech