রামপালে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে বেকারী সামগ্রী দেখার কেউ নেই

  

পিএনএস, স্টাফ রিপোর্টার (বাগেরহাট) : বিশুদ্ধ ও নিরাপদ খাদ্য মাননিয়ন্ত্রন আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ীরা অনুমোদনহীনভাবে অত্যান্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বেকারী সামগ্রী তৈরী ও তা বাজারজাত করার অভিযোগ উঠেছে। মানহীন এসব বেকারী সামগ্রী খেয়ে স্বাস্থ্য ঝুকিতে পড়ছে এলাকার মানুষ বিশেষ করে শিশুরা। সচেতন মহল এসব অসাধু ব্যবসায়ীদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। খোজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার ফয়লা বাজার ও এর আশপাশে বেশ কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অবৈধভাবে চুল্লি (ওভেন) বসিয়ে বেকারী সামগ্রী কেক, রুটি, বিস্কুট তৈরি করে আসছে। ওই বাজারে একমাত্র বাবুল বেকারীর বৈধ কাগজপত্র থাকলে ও নিয়ম মেনে বেকারী সামগ্রী তৈরি করা হচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে।

এছাড়া রনসেন এলাকার হোসাইন শেখ নামে এক ব্যক্তি শামীম ফুড এর লেভেল লাগিয়ে বেকারী সামগ্রী বাজারজাত করছে। ওই বেকারী সামগ্রীতে উৎপাদন ও মেয়াদের কোন তারিখ উল্লেখ নেই। একইভাবে আব্দুল্লাহর মিতালী ফুড নামের প্রতিষ্ঠানগুলো চলছে অনুমোদনহীনভাবে। রামপাল সদরের মা বেকারী ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বেকারী সামগ্রী তৈরি করে আসছে। পেড়িখালী বাজারে ভাই ভাই বেকারী ফ্যাক্টরীর মান কিছুটা ভাল দেখতে পাওয়া গেলেও সজিব বেকারী ও থ্রী-ষ্টার বেকারীর অবস্থা অথৈবচ ! বহুবার ভ্রাম্যমান আদালত ও বিএসটিআই এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থার অংশ হিসাবে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে জেল জরিমানা করেন। এসব প্রতিষ্ঠান সরকারি বিধি মোতাবেক পরিচালনা করার অঙ্গীকার করলেও তা মেনে চলে না। সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর নজরদারী না থাকায় দিন দিন এ সব অসাধু ব্যবসায়ীরা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

এব্যাপারে উপজেলা স্যানেটারী ইন্সেপেক্টর মুঞ্জুশ্রী সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা কঠোরভাবে নজরদারি করে যাচ্ছি। এরপর কোন প্রতিষ্ঠান যদি নিয়ম মেনে বেকারী সামগ্রী তৈরি না করে সেই সকল প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নিম্নমানের বেকারী তৈরির অভিযোগের বিষয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তুষার কুমার পালের কাছে জানতে চেয়ে তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল



 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech