চিরিরবন্দরে ত্রানস্বল্পতার কারনে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে চলছে হাহাকার

  

পিএনএস, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের চিরিরবন্দরেত্রান স্বল্পতার কারনে চাহিদার তুলনায় প্রয়োজনীয় ত্রাণসামগ্রী না পাওয়ায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তপরিবারগুলোর মাঝে শুরু হয়েছে হাহাকার । উপজেলার অনেক স্থানেপানি কমতে শুরু করলেও কিছু কিছু এলাকায় এখনো পানি থৈ থৈ করছে। ক্ষতিগ্রস্ত বন্যাদুগর্তদের ঘরে নেই কোনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানি। বন্যায় উপজেলার বাসুদেবপুর, লক্ষীপুর, রঘুনাথপুর, জয়পুর, খেড়কাটী, ভাবকী, তুলশীপুর, দোয়াপুর, শ্যমনগর, দক্ষিন সুকদেবপুর, দল্লা, বানিয়াখাড়ী, তালপুকুর, নানিয়াটিকর, দুর্গাডাঙ্গা, ধুরইল, গোড়গোড়া, মুকুন্দপুর, ঢাকইল, আলোকডিহি,অমরপুর,তেঁতুলিয়া, আন্ধারমুহা, গোবিন্দপুর, মহাদানী, ছোটবাউল, বড়বাউল, নশরতপুর, ভিয়াইল,আব্দুলপুর,সাইতাড়া,আউলিয়াপুকুর. পুনট্টি,ফতেজংপুর, দক্ষিন আব্দুলপুর, চিরিরবন্দর সদরসহ আরও অনেক গ্রামের অসংখ্য মানুষ এখনো পানিবন্দি অবস্থায় পড়ে আছে।

গত দু’দিনে সরকারিভাবে ১২ ইউনিয়নে ১২টন চাল ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ যে ত্রান বিতরণ করেছেন তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। প্রয়োজনীয় ত্রান সংকটে অনাহারে অনেক বন্যার্তরা দূর্বিসহ জীবন যাপন করছে। ত্রানের অপেক্ষায় অনেকেসকাল থেকে সারাদিন অপেক্ষা করেও কেউ সহযোগিতার হাত না বাড়ায় অনাহারে দিন কাটাচ্ছে।বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের অনেকে অভিযোগ করে বলেন,কিছু কিছু এলাকায় সরকারি-বেসরকারিভাবে ত্রান সহযোগিতা দেয়া হলেও প্রত্যন্ত এলাকায় এখনও ত্রান সামগ্রী পৌছেনি। অনেক এলাকায় যাতায়াত ব্যবস্থা খারাপ হওয়ায় তাদের কোন খোঁজ খবরওকেউ নেয়নি।ফলে তারা অসহায়ত্বভাবে দিনাতিপাত করছে।

আব্দুলপুর ইউনিয়ন পরিষদে ত্রান নিতে আসা ৪নং ওয়ার্ডের আব্দুস সালাম,কুলসুম বেগম জানান, ত্রান সামগ্রী বিতরণে ব্যাপক অনিয়ম করা হচ্ছে। তিনি ত্রানের জন্য ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে সকাল ৯টা থেকে অপেক্ষা করে বিকাল ৩টায় পেয়েছেন মাত্র১ কেজি চাল। যেখানে একটি পরিবারের জন্য বরাদ্ধ ছিলো ৫ কেজি চাল,ডাল,লবন,মোমবাতি,ম্যাচ, শুকনো খাবার, পানি বিশুদ্ধকরণ ১টি ট্যাবলেট ও ১টি করে ব্যাগ। এ ব্যাপারে চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো:গোলাম রব্বানী বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পর্যবেক্ষন করে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। সবাই যেনত্রান পায় সেদিকে বর্তমানে খেয়াল রাখছি আমরা। যতটুক ত্রান দেয়া হচ্ছে তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল হলেও বরাদ্ধ অনুযায়ী দেয়া হচ্ছে। তবে ক্ষতিগ্রস্তদের আরো বেশী প্রয়োজনীয় ত্রান সামগ্রী বরাদ্ধের জন্য উর্ধ্বতন কৃর্তপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল



 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech