দুর্গাপূজায় নিরাপত্তার চাদরে নন্দীগ্রাম, প্রস্তুতি সম্পন্ন

  

পিএনএস, জেলা প্রতিবেদক : হিন্দু সম্প্রদায়ের আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা নিরাপদে উদযাপনের লক্ষ্যে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে পুলিশ। দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমাশিল্পী ও আয়োজকরা। ইতিমধ্যে খড়, মাটি আর দো-মাটি দিয়ে প্রতিমা নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। সেই সঙ্গে পূজামণ্ডপ তৈরি থেকে শুরু করে আয়োজকরা আনুসঙ্গিক কাজে ব্যস্ত রয়েছেন । আর কয়েকদিন পরই শারদীয় দুর্গোৎসবে ঢাকের বাজনা, উলুধ্বনি ও আরতিতে মুখরিত হবে পাড়া-মহল্লা। এ বছর দেবী দুর্গা নৌকায় চড়ে পৃথিবীতে আসবেন। যাবেন ঘোড়ায় চড়ে।

শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলা জুড়েই ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করেছে থানা পুলিশ। হিন্দু সম্প্রদায় তাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান উদযাপনে পুলিশসহ সকল নিরাপত্তা বাহিনীর সহযোগিতা পেয়ে আসছে। অতীতের মতো এবারও পুলিশ বাহিনীর সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়ে নন্দীগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান- নন্দীগ্রামে এবার মোট ৪৬ টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। যারমধ্যে ১০ টি পূজামন্ডপ অধিক গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা।

সেগুলো হলো- পৌর শহরের হিন্দুপাড়া রাধা গোবিন্দ মন্দির, হিন্দুপাড়া বারোয়ারী দূর্গা পূজা মন্দির, বুড়ইল ইউনিয়নের বুড়ইল বারোয়ারী দূর্গাপূজা মন্দির, দাসগ্রাম বারোয়ারী দূর্গাপূজা মন্দির, নন্দীগ্রাম সদর ইউনিয়নের রনবাঘা বাজার দূর্গাপূজা মন্দির, ভাটরা ইউনিয়নের মুলকুড়ি পাড়া বারোয়ারী দুর্গাপূজা মন্দির, থালতামাজগ্রাম ইউনিয়নের চাঁনপুর উত্তরপাড়া বারোয়ারী দুর্গাপূজা মন্দির, চাঁনপুর মধ্যপাড়া বারোয়ারী দূর্গাপূজা মন্দির, চাঁনপুর পূর্বপাড়া বারোয়ারী দুর্গাপূজা মন্দির, ভাটগ্রাম ইউনিয়নের হাটকড়ই কালিবাড়ী বারোয়ারী দুর্গাপূজা মন্দির।

পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান- স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রত্যেক মন্ডপে নিরাপত্তার দিক বিবেচনা করে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। যেকোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতিতে প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা গ্র্রহণের জন্য সর্বদা সতর্ক দৃষ্টি রাখবে। উপজেলার প্রতিটি পূজা মন্ডপে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় ও নিরাপত্তার জন্য স্থানীয় প্রশাসন পুলিশ, র্যা ব, আনসার, গ্রাম পুলিশ ও পূজা উদযাপন পরিষদের স্বেচ্ছাসেবীরা দাযিত্ব পালন করবেন। এছাড়া মন্ডপ সংশ্লিষ্ট নেতাদের সঙ্গে আলোচনা ও মন্ডপের নিরাপত্তার স্বার্থে যাবতীয় করণীয় পদক্ষেপ নিয়েছে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন।

এদিকে, শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে মণ্ডপ তৈরি থেকে শুরু করে আনুসঙ্গিক কাজে ব্যস্ত রয়েছেন আয়োজকরা। জাঁকজমকভাবে পূজা আর দর্শনার্থীদের আনন্দ দিতে মণ্ডপ আর সড়কগুলোতে আলোকসজ্জার কাজ শুরু করেছেন। সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বজায় রেখে এ বছরও ব্যাপক সাড়ম্বরে দুর্গোৎসব হবে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

নন্দীগ্রাম উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রদীপ চন্দ্র সরকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই পূজা অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করে বলেন, ২৬ সেপ্টেম্বর ষষ্ঠি পূজার মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর (শনিবার) বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে শারদীয় দুর্গোৎসব। আমরা ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্যদিয়ে শারদীয় দুর্গাপূজা উৎসব পালন করে থাকি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech