সাহায্য নিয়ে রোহিঙ্গাদের পাশে নরসিংদীর বেলাব প্রেসক্লাব

  


পিএনএস ডেস্ক: মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর অত্যাচার, নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা। জাতিসংঘের সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী নতুন করে শুরু হওয়া রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনীর অত্যাচার, নিপীড়ন থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গার সংখ্যা প্রায় ৩ লাখ ৭০ হাজার। যাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু। এ রোহিঙ্গা শরনার্থীদের সাহায্য করছে বিভিন্ন সংগঠন ও মানবসেবাকর্মীরা। তারই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রোহিঙ্গাদের পাশে সাহায্য নিয়ে দাড়িয়েছে নরসিংদীর বেলাব প্রেসক্লাব।

সাংবাদিক আশিকুল ইসলাম হানিফ জানান, কক্সবাজারের টেকনাফ ঘুমধুম বর্ডারে রোহিঙ্গায় একাকার। কোথাও তিল ধারণের ঠাঁই নেই। পানি, খাবার নেই। পয়োনিষ্কাশনেরও ব্যবস্থা না থাকায় লাখ লাখ রোহিঙ্গার ভরসা এখন মহাসড়কের দুই পাশ।

আর তাকিয়ে থাকে সাহায্যকারী মানুষের হাতে ও দৌরে ছুটে হাজার হাজার রোহিঙ্গা।

তিনি আরো বলেন, আর এই রোহিঙ্গাদের এখন বড় ভরসা স্থানীয় এবং দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে এগিয়ে আসা মানুষ। মানবতাবাদী এসব মানুষ সাধ্যমতো সহযোগিতা করে যাচ্ছে। সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, কেউ খিচুড়ি রান্না করে, আবার কেউ কাপড়চোপড়সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য, যেমন—চাল, ডাল, তেল, লবণ, পেঁয়াজ, সবজিসহ বিভিন্ন খাদ্যপণ্য বিতরণ করছে। বিতরণ করা হচ্ছে শুকনা খাবারও।

মামিয়া নামের এক রোহিঙ্গা নারী ত্রাণ পেয়ে বলেন, ‘চারদিন আগে এই ক্যাম্পে এসেছি। কিছুই আনতে পারিনি। সাহায্য পেয়েই বেঁচে আছি। নিজ দেশের মানুষরা তাড়িয়েছে আর ভিন দেশিরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।’

সুক্কুর নামের আরেক শরণার্থী বলেন, ‘এখানে এসেছি ৩ দিন হলো। আর এই ৩ দিনই আমাদেরকে খাইয়েছে এখানকার মানুষেরা। উনারা খাবার না দিলে না খেয়েই মারা যেতাম আমরা।’

এদিকে ত্রানবাহি কোনো মাইক্রোবাস কিংবা বাস দেখলেই চারদিক থেকে রোহিঙ্গারা ঘিরে ধরছে। এই অতি ভিড়ের কারণে ত্রাণ দেওয়াও খুব কষ্টসাধ্য হচ্ছে ত্রাণ নিয়ে আসা মানুষদের। এ অবস্থায় প্যাকেটভর্তি খাদ্যসামগ্রী যা ছিল, তা রোহিঙ্গাদের মধ্যে ছিটিয়ে দিলে তা কুড়িয়ে নেয় আগত শরণার্থীরা।

বেলাব প্রেসক্লাব কর্তৃক আয়োজিত, মায়ানমার থেকে বাংলাদেশে আগত শরনার্থী রোহিঙ্গাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণের সময় বেলাব সদরের চেয়ারম্যান গোলাপ মিয়া,সাংবাদিক মোশারফ হোসেন নীলু,দুলাল সরকার,মকবুল হাসান রজনী, মাসুদ ও সাংবাদিক রুমেল আফ্রাদ উপস্থিত ছিলেন।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech