ঋণের কিস্তি দিতে না পারায় আত্মহত্যা

  



পিএনএস ডেস্ক: স্ত্রীর এনজিওর ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে শুকুর আলী আত্মহত্যা করেছেন হতভাগা স্বামী। শনিবার সন্ধ্যায় জামালপুর পৌর এলাকার বগাবাইদ গ্রামে এই আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে।

প্রতিবেশীরা জানায়, ব্যুারো বাংলা নামে স্থানীয় একটি বেসরকারি সংস্থা থেকে বগাবাইদ গ্রামের শুকুর আলীর স্ত্রী রতনা বেগম ৮০ হাজার টাকা ঋণ নেয়। অভাবের তাড়নায় ঋণের টাকা পরিশোধ করতে পারছিলেন না। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ঠিকমতো কিস্তি দিতে না পারায় রতনা বেগমের স্বামী শুকুর আলীর সাথে ঝগড়া চলে আসছিল।

বুধবারের কিস্তির টাকা শনিবারের দেয়ার সময় নেন গৃহবধূ রতনা। পুর্বের নির্ধারিত সময় অনুযায়ী শনিবার কিস্তির টাকা নেয়ার জন্য রতনার বাড়ি যায় ব্যুারো বাংলাদেশে এনজিও কর্মী। রতনার বাড়ি গিয়ে ঋণের কিস্তির টাকার জন্য ফের চাপ দেয়। এক পর্যায়ে টাকা দিতে ব্যর্থ হয়ে রতনা তার স্বামীকে চাপ দেন। স্ত্রীর চাপ আর অপমানের লজ্জায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে শুকুর আলী।

এ বিষয়ে ব্যুারো বাংলাদেশ-এর আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মো. ইসমাইল হোসেন যোগাযোগ করা হলে তিনি আমাদের পক্ষ থেকে কোন চাপ দেয়া হয়নি। তবে গত বুধবার ঋণের কিস্তি দেয়ার তারিখ ছিল। ওই দিন টাকা দিতে পারেননি। শনিবার এই কিস্তির টাকা দেয়ার তারিখ ছিল। আমার কর্মীরা টাকার জন্য গিয়ে দেখে রতনার স্বামী আত্মহত্যা করেছে।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পারার কারণেই শুকুর আলী আত্মহত্যা করেছে।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech