ডিমলায় এক গুনী জনের অসাধারন নৈপূর্ণতার গল্প

  

পিএনএস, ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি : নীলফামারী ডিমলা উপজেলার গয়াবাড়ী ইউনিয়নের শুটিবাড়ী বাজার সংলগ্ন স্থায়ী বাসিন্দা শ্রী যুক্ত বাবু কানাইলাল কর্মকার, পিতা- মৃত কার্তিক কর্মকার। পেশায় তিনি স্বর্ণ কর্মকার (বানিয়া) জীবনের সবটুকু শ্রম দিয়ে আত্বমানবতার সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন সবসময়। এরই ধারাবাহিকতায় নিজ বাড়ীতে মন্ডব বানিয়ে পরিবারের আনুসাঙ্গিক চাহিদা মেটানো সহ এলাকার মানুষের জন্য হয়ে উঠেছেন এক দেবতা। তার কর্ম কৌশলে আত্বমানবতায় ৪৬ বছর যাবত স্বীকৃতি মিললেও রাষ্ট্রের নিয়ম নীতিতে স্থান পায়নি এ স্বর্ণ কর্মকারে নাম।

তার ব্যক্তি জীবনে সহধর্মনী সহ দুই ছেলে এক মেয়ে। সনাতন ধর্মীয়দের বড় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজায় নিজ খরচে বাড়ীর পাশে একটি মন্ডব তৈরী করেছেন তিনি যার নাম করণ করা হয়েছে বানীয়া বাড়ী দূর্গা মন্ডব। পূজা অর্চনায় বিভিন্ন এলাকার মানুষের সমাগম ঘটে সেখানে। এ ব্যাপারে কথা হয় তার শ্রী অনিতা রানী কর্মকার তিনি বলেন সেই ছোট বেলা থেকে দেখে আসছি বাবার মন্ডবে দর্শনার্থীদের ভীড় দেশ বাসী ও এলাকাবাসী নিকট আর্শীবাদ চাই। এ বারো যেন মহা ধুমধামে পূজা করতে পারি।

সেই সাথে কথা হয় এলাকাসী নিবেন্দ্র নাথ রায়, পুলিন চন্দ্র রায়, কাছুয়া রায়, শিবেন্দ্র নাথ রায় সহ অনেকে জানায় কর্মকার জাতিবর্ণ নির্বীশেষে তার দানবীয় হাত সব সময় মুক্ত রাখে।

এ ব্যাপারে শ্রী যুক্ত বাবু কানাইলাল কর্মকার বলেন সনাতন ধর্মীয় পূজা অর্চনায় উৎসবের ভাবনা আমার দীর্ঘ দিনের তা বাস্তবায়ন করতে পেরে নিজেকে স্বার্থক মনে করছি। তাই আসন্ন শারদীয় দূর্গা পূজায় বানিয়া বাড়ী দূর্গা মন্ডবের প্রতিবছরের ধারাবাহিকতায় সপ্তমী হতে নবমী পর্যন্ত প্রসাদ বিতরণ করা হয়। পরিশেষে দেশবাসী ও এলাকাবাসীকে জানাই শারদীয় দূর্গা পূজার শুভেচ্ছা।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech