নন্দীগ্রামে গৃহবধুকে অপহরণের পর উদ্ধার, আতঙ্কে পরিবার

  

পিএনএস, বগুড়া জেলা প্রতিবেদক : বগুড়ার নন্দীগ্রামে গৃহবধু বুলবুলি(৩৬) কে অপহরণের ২৪ ঘন্টা পর অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানে হয়েছে। এঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। এখনো শঙ্কা কাটেনি ওই গৃহবধুর পরিবারের। অচেতন অবস্থায় ৩দিন পর গৃহবধু বুলবুলির জ্ঞান ফিরলেও বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫দিন ধরেও তার অবস্থার উন্নতি হয়নি।

এলাকাবাসি ও গৃহবধুর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বুড়ইল ইউনিয়নের তেঘরী দক্ষিনপাড়া গ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী বুলবুলি বেগম (৩৬) বাড়ির বিদ্যুতের বকেয়া বিল দেয়ার জন্য পল্লী বিদ্যুত অফিসের উদ্দেশ্যে গত ৮ অক্টোবর সকাল ১১টার দিকে বাড়ি থেকে বের হন। পথিমধ্যে কাথম মোড় এলাকায় পৌছিলে পূর্ব থেকেই ওঠ পেতে থাকা অপহরণকারী চক্রের অজ্ঞাত ৪/৫জন ব্যক্তি ওই গৃহবধুর পথরোধ করে জোরপূর্বক মুখে রুমাল দিয়ে অজ্ঞান করে জনৈক একটি সিএনজিতে তুলে নিয়ে চলে। এরপর ওই গৃহবধু বাড়িতে ফিরে না আসলে পরিবারের লোকজন খোঁজাখুজি শুরু করে। এরপর তাকে কোথাও খুঁজে না পেয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েন পরিবারের লোকজন। এখবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে চরম আতঙ্কের সৃস্টি হয়।

খোঁজাখুজির পরের দিন ৯ অক্টোবর কাথম বেড়াগাড়ী এলাকায় বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের পাশে অচেতন অবস্থায় অপহৃতা গৃহবধু বুলবুলিকে ফেলে রেখে যায় অজ্ঞাত অপহরণকারীরা। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভতি করে। তবে এঘটনায় ৫দিন অতিবাহিত হলেও থানায় এখন পর্যন্ত মামলা দায়ের হয়নি।

শুক্রবার শজিমেক হাসপাতালে গৃহবধু বুলবুলি সাংবাদিকদের জানান, তেঘরী গ্রামের নেংড়া ফিরোজসহ ৪/৫জন ব্যক্তি তাকে মুখে রুমাল দিয়ে অজ্ঞান করে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর তিনি আর কিছুই বলতে পারেন না।

অপহৃতার বড়ভাই বজলুর রহমান বলেন, উদ্ধারের ৩দিন পর হাসপাতালে আমার বোনের জ্ঞান ফিরেছে। এখনো সুস্থ্য হয়নি। আমার বোনের দুই ছেলে সনি ও সবুজ প্রবাসে থাকে। আমরা পরিবার নিয়ে আতঙ্কের মধ্যে আছি। বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে।

এপ্রসঙ্গে থানার এএসপি (সার্কেল) মাহবুবুর রহমান কাজল বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। তবে এঘটনায় থানায় কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech