রাজশাহীতে নববধূর রহস্যজনক মৃত্যু

  

পিএনএস ডেস্ক : রাজশাহীর বাঘা উপজেলার মনিগ্রামে বৃষ্টি খাতুন (১৯) নামের এক নববধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বাঘা থানা পুলিশ শ্বশুর বাড়ি থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে।

পরে দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (রামেক) মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় পুলিশ নিহত বৃষ্টির স্বামী মাহাবুরকে আটক করেছে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী মাহামুদ জানান, এক মাস আগে মনিগ্রাম এলাকার নবির উদ্দিনের ছেলে মাহাবুর রহমনের (২৬) সঙ্গে পাশের চারঘাট উপজেলার নন্দনগাছী গ্রামের হামিদুর রহমানের মেয়ে বৃষ্টি খাতুনের বিয়ে হয়।শ্বশুর বাড়ি থেকে বৃষ্টি খাতুনের মরদেহ উদ্ধারের সময় নিহতের বোন দোলেনা খাতুন অভিযোগ করেন, বিয়ের পর থেকে তার বোন ওই বাড়িতে কষ্টে ছিল। তাকে বাবার বাড়ির লোকজনের সঙ্গে ঠিকমত যোগাযোগ করতে দিতেন না মাহাবুর। বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ দিতেন।

তবে আটকের পর বৃষ্টির স্বামী মাহাবুর দাবি করেছেন, এ অভিযোগ সঠিক নয়। তার স্ত্রী অন্য একটি যুবকের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলত। বিষয়টি জানার পর সে গোপনে স্ত্রীর মোবাইলের কল রের্কড চালু করে রাখে।

এ বিষয় নিয়ে সোমবার গভীররাতে বৃষ্টি খাতুনের সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। ভোরে সবার অগোচরে বৃষ্টি খাতুন শোবার ঘরে গলায় উড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন।

বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী মাহামুদ জানান, ওই নববধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন, না তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে মরদেহ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। ঘটনাটি রহস্যজনক। এজন্য তার স্বামীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হচ্ছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech