আগামী বছরই উদ্বোধন লেবুখালী সেতু

  

পিএনএস, দুমকি(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি : পটুয়াখালীর পায়রা নদীতে দেশের চতুর্থ বৃহত্তম লেবুখালী সেতুর প্রায় ২৫ ভাগ কাজ শেষ। আগামী বছরের এপ্রিলেই যানচলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হবে এই সেতু ।

ইঞ্জিনিয়ার মনজিৎ কুমার সাহা বলেন, ইতিমধ্যে দৃশ্যমান হয়েছে প্রায় ১২ টি পিলার । লংজিয়ান চায়নার নির্মাণ শ্রমিকরা খাবার বিরতি ব্যতিরেকে দিনে রাতে সমান তালে অত্যন্ত দ্রুততার সাথে চালাচ্ছেন নির্মাণ কাজ। সেতুটি নির্মানের জন্য নির্ধারিত সময় ৩৩ মাস। আগামী ২০১৯ সলের ২৩ এপ্রিল সেতু নির্মানের কাজ সম্পন্ন হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন ।

সওজ’র প্রকৌশল বিভাগ সূত্র জানায়, বরিশাল-পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের ৩৯কি.মিটারে পায়রা নদীর ওপর ‘লেবুখালী সেতু' নির্মাণের মধ্যে দিয়ে উপকূলের ৫০লক্ষ মানুষের স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। চার লেন বিশিষ্ট ৪.৫ কি.মিটার দৈর্ঘ্যরে গার্ডার ব্রিজটির উভয় দিকে ৭কি.মিটার জুড়ে নির্মাণ করা হবে এ্যাপ্রোজ সড়ক। ব্রিজটির প্রাক্কলিত নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ১৫শ'কোটি টাকা। কুয়েত সরকারের অর্থায়নে সড়ক ও জনপথ বিভাগের তত্বাবধানে চায়নার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লংজিয়ান চাইনিজ কোম্পানী সেতুটি নির্মাণ করছেন। লেবুখালী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের প্রজেক্ট ম্যানেজার মি. চেন উই জানান, গত বছরের ২৪ জুলাই কুয়েত সরকারের অর্থায়নে ১হাজার ৪শ'৭০ মিটার দীর্ঘ ও ১৯.৭৬ মিঃ প্রস্থ লেবুখালী সেতুর নির্মান কাজ শুরু করা হয়েছে।

দুইটি অ্যাবাটমেন্ট ও ৩১টি পিলারের সেতুটির প্রায় ১২ টি পলিারের কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। দক্ষিণাঞ্চলের সামাজিক ও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির ক্ষেত্রে লেবুখালী সেতু গুরুত্বপুর্ন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। ব্রিজটি নির্মিত হলে পটুয়াখালী-বরগুণা জেলাসহ উপকূলীয় অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থায় সৃষ্টি হবে অভূতপূর্ব উন্নয়ন। খুলে যাবে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটার সম্ভাবনার দ্বার।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech