সুন্দরবনে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দস্যু গামা নিহত

  

পিএনএস ডেস্ক: সুন্দরবনে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে গামা মণ্ডল নামের এক বনদস্যু নিহত হয়েছে।
মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে সুন্দরবনের আড়পাঙ্গাসিয়া নদীর (বাটলু) ভায়রার খাল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১১ জন জিম্মি জেলে, দু’টি নৌকা এবং ২টি অস্ত্র ও ৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে।
নিহত দস্যুর নাম পলাশ ওরফে গামা মন্ডল (৩৫)। সে দস্যু মুন্না বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড। তার বাড়ি খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার শরাপপুর গ্রামে বলে জানা গেছে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কয়রা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এনামুল হক বলেন, দস্যু মুন্না বাহিনীর সদস্যরা মুক্তিপণের দাবিতে ১১জন জেলেকে জিম্মি করে। এ খবর পেয়ে মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৭টায় তার নেতৃত্বে সুন্দরবনের আড়পাঙ্গাসিয়া নদীর (বাটলু) ভায়রার খাল এলাকায় অভিযান শুরু করেন। এ সময় দস্যুরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে পাল্টা গুলি ছুড়তে থাকে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলি করে। এক পর্যায়ে মুন্না বাহিনী পিছু হটে। এ সময় ঘটনাস্থলে মুন্না বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পলাশ ওরফে গামাকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে ১১ জন জিম্মি জেলে, দু’টি নৌকা এবং ১টি শার্টার গান, ১টি টুটুবোর রাইফেল ও ৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

এ সময় উভয়পক্ষের গোলাগুলিতে কয়রা থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই রাজিউল আমিন এবং কনস্টেবল মো. লিটন ও হারিজ আহত হন বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech