পটুয়াখালী-কুয়াকাটা সড়ক সংস্কার কাজ ৫ বছর বন্ধ

  


পিএনএস ডেস্ক: মামলা জটিলতায় পাঁচ বছর ধরে আটকে আছে পটুয়াখালী-কুয়াকাটা সড়ক নির্মাণকাজ। এই সড়কের ১১ কিলোমিটার রাস্তা জুড়ে খানা-খন্দ থাকায় বর্তমানে তা যানবাহন চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। সড়কের বেহাল দশার কারণে কুয়াকাটার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছেন পর্যটকরা।

পটুয়াখালী সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ২০ কোটি টাকা ব্যয়ে পটুয়াখালী-কুয়াকাটা সড়কের পাখিমারা বাজার থেকে মৎস্যবন্দর মহীপুর পর্যন্ত অংশের দৈর্ঘ্য ১১ কিলোমিটার। দ্য রূপসা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ২০০৯-১০ অর্থবছর পটুয়াখালী-কুয়াকাটা সড়কের উন্নয়নের কাজ পায়। ওই কাজ মানসম্মত না হওয়ায় ২০১২ সালে ঠিকাদারদের ৫ কোটি টাকার বিল আটকে দেয় সড়ক ও জনপথ বিভাগ কর্তৃপক্ষ। বিল আটকে দেয়ার পরিপ্রেক্ষিতে রূপসা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের প্রতিনিধি রাসেদুল ইসলাম পটুয়াখালী দেওয়ানী আদালতে ২০১৪ সালে একটি এবং ২০১৫ সালে দুটি মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলার পরিপ্রেক্ষিতে পাখিমারা-মহিপুর অংশের ১১ কিলোমিটার সড়কের নির্মাণকাজের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। যা এখনও বলবৎ আছে। ফলে গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি সংস্কারবিহীন অবস্থায় পড়ে রয়েছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞার কারণে টেন্ডার দিয়ে তা মেরামত করাও সম্ভব হচ্ছে না।

কুয়াকাটায় বেড়াতে এসেছেন মহসিন তালুকদার। তিনি জানান, আসার সময় বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। রাস্তার এই দৈন্যদশার কারণে পর্যটক হারাচ্ছে কুয়াকাটা। অনেকে খানা-খন্দে ভরা রাস্তায় দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। আর সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়ে শিশু ও বৃদ্ধরা।

কুয়াকাটার হোটেল ব্যবসায়ী মো. রুহুল আমিন বলেন, রাস্তার এ অবস্থার কারণে শীত মৌসুমে পর্যটকদের আগমন কমে যেতে পারে। এতে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হবে পর্যটন খাত। কুয়াকাটার পর্যটন ব্যবসায় কথা বিবেচনা করেই সড়কটির সংস্কার জরুরি।

স্থানীয় ভাড়াটে মোটরসাইকেল চালক আ. রহিম জানান- গাড়ির গতি বাড়ানো যায় না। সামান্য গতিতে চালালেও ঝাঁকুনির কারণে যাত্রীদের গালমন্দ খেতে হয়। ভাঙা রাস্তার কারণে গাড়ির ক্ষতি হয়। অনেক সময় ঘটে দুর্ঘটনা।

পটুয়াখালী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মীর নিজাম উদ্দিন বলেন, পাখিমারা থেকে মহিপুর পর্যন্ত মহাসড়কের উন্নয়ন কাজ আদালতের নিষেধাজ্ঞার কারণে করা যাচ্ছে না। আদালত নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলে অথবা মামলার নিষ্পত্তি হলে কাজটি করা সম্ভব হবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে এই ১১ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণের জন্য প্রায় ৪০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে এবং তাতে একনেকেরও অনুমোদন হয়েছে। সড়ক নির্মাণকাজ শেষ হলে কুয়াকাটায় যাতায়াত সহজ হবে। সেই সঙ্গে বাড়বে ব্যবসা বাণিজ্য।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech