নাসিনগরে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রীর জানাযা ও দাফন সম্পন্ন

  

পিএনএস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা নাসিরনগর নাসিনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রবীন ও বর্ষিয়ান নেতা। নাসিরনগরের উন্নয়নের রূপাকার। সততার মূর্ত প্রতীক হিসাবে খ্যাত। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এডঃ মোঃ ছায়েদুল হকের তিন দফা জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার পাশে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

সকাল দশ ঘটিকায় জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও সর্বস্তরের জনগনের উপস্থিতিতে প্রথম জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। পরে হেলিকাপ্টার যোগে মন্ত্রীর লাশ নিয়ে আসা হয় তার নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসন নাসিরনগরে। বেলা ১২ ঘটিকায় স্থানীয় আশুতোষ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দ্বিতীয় জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এডঃ আব্দুল মতিন খসরু,এম,পি,আইন ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী এডঃ মোঃ আনিসুল হক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসনের এম,পি ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র,আ,ম ওবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ সরাইল আশুগঞ্জ আসনের এমপি এডঃ জিয়াউল হক মৃধা, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক ক্যাপ্টেন এ,বি,এম তাজুল ইসলাম, এম,পি,কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ এনামুল হক শামীম,জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল ইসলাম এম,এস,সি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আল মামুন সরকার,সাবেক পৌর চেয়ারম্যান মোঃ হেলাল উদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডঃ মাহবুব উদ্দিন খোকন, জেলা যুব লীগ সভাপতি এড: শাহানুর ইসলাম,সাবেক জেলা ছাত্রলীগ মোঃ মাছুম বিল্লাহ, মৎস্য অধিদপ্তরের মহা পরিচালক মোঃ আইনুল হক, নাসিরনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ডাঃ মোঃ রাফিউদ্দিন,সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান এ,টি,এম মনিরুজ্জামান সরকার,সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ লিয়াকত আব্বাস টিপু, যুবলীগ সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অঞ্জন কুমার দেব,কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি এম,এ করিম, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতিও কুমিল্লা ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ার ম্যান সৈয়দ মোঃ এহসান,উপজেলা বি.এন,পির সভাপতি ও বেগম খালেদার জিয়ার উপদেষ্ঠা সৈয়দ একরামুজ্জামান (সূখন),সাধারন সম্পাদক ও গোকর্ণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম, এ হান্নান, বুড়িশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা বি.এন.পির সাবেক সভাপতি মোঃ ইকবাল চৌধুরী, হরিপুর ইউপি চোরম্যান দেওয়ান আতিকুর রহমান আঁখি,উপজেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা,কর্মচারী, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বৃন্দ সহ জানাযায় সর্বস্তরের হাজার হাজার লোকের সমাগম ঘটে। প্রিয় নেতাকে এক নজর দেখার জন্য লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়ে জানাযার মাঠ।

পরে মন্ত্রীর মৃত দেহ নিয়ে যাওয়া হয় তার নিজ গ্রাম পূর্বভাগে। বাদ যোহর পূর্বভাগ এস,ই,ডি,পি মডেল হাইস্কুল মাঠে ততৃীয় জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তার লাশের দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য গত ১৫সেপ্টেম্বর বিভিন্ন সমস্যাজনিত কারণে মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী বঙ্গ বন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিন মাস চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় ১৬ই ডিসেম্বর, রোজ: শনিবার সকাল সাড়ে ৮ ঘটিকার সময় শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করে সবাইকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে চলে যান না ফেরার দেশে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech