নারীদের জন্য নির্মাণাধীন শৌচাগার ভেঙে দিল মাদরাসাছাত্ররা

  

পিএনএস, সিলেট: সিলেট নগরের চৌহাট্টা এলাকায় নারী ও প্রতিবন্ধীদের ব্যবহারের জন্য সিলেট সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে নির্মাণাধীন শৌচাগারের দেয়াল পুলিশের উপস্থিতিতেই ভেঙে ফেলেছেন সিলেট সরকারি আলিয়া মাদরাসার ছাত্ররা। রোববার বেলা আড়াইটার দিকে প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী হামলা চালিয়ে শৌচাগারটি ভেঙে ফেলে।

সিটি কর্পোরেশন সূত্রে জানা গেছে, প্রতিবন্ধী ও নারীদের জন্যে সম্প্রতি চৌহাট্টা এলাকায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে ও উন্নয়ন সংস্থা ওয়াটার এইডের সহযোগিতায় ‘ওয়াশ ব্লক’ বা শৌচাগার নির্মাণ করা হচ্ছে। উদ্যোগ অনুযায়ী শৌচাগার নির্মাণের কাজও শুরু হয়। রোববার নির্মাণাধীন সেই শৌচাগারের দেয়াল ভেঙে দেয় চৌহাট্টা এলাকায় অবস্থিত সরকারি আলিয়া মাদরাসারছাত্ররা।

শিক্ষার্থীদের ওই তাণ্ডবের সময় ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত থাকলেও তারা ছিল অনেকটা দর্শকের ভূমিকায়। পুলিশের সামনেই মাদরাসার শিক্ষার্থীরা সীমানাপ্রাচীর ভেঙে ফেলে। সিলেট সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ এ ঘটনাকে ন্যাক্কারজনক বলে অভিহিত করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মাদরাসার প্রায় দুই শতাধিক ছাত্র এসে শৌচাগারের দেয়াল ভাঙতে শুরু করে। পরে এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের ধাওয়া দিলে ছাত্ররা পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আমি আলিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপালের সঙ্গে কথা বলেই শৌচাগার নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছি। পাশাপাশি মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের জন্য অযুখানা ও গোসলখানা নির্মাণ করে দেবো বলেছি। তবু মাদরাসার ছাত্ররা কেন ভাঙচুর করল বুঝতে পারছি না।

তিনি আরও বলেন, মাদরাসার একেবারে ভেতরে শৌচাগার নির্মিত হচ্ছে না। এটি নির্মাণ করা হচ্ছে মাদরাসার পাশে সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের পাশে। মাদরাসার মাত্র ৯ ফুট জায়গা আমরা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে ব্যবহার করেছি।

নারী ও প্রতিবন্ধীদের অসুবিধার কথা মাথায় রেখেই শৌচাগার নির্মাণ প্রয়োজন জানিয়ে মেয়র বলেন, নারী ও প্রতিবন্ধীরা কি আমাদের স্বজন নন? তাদের সুবিধা-অসুবিধা আমরা দেখবো না?

তবে ভাঙচুরকারী ছাত্ররা বলছেন, মাদরাসার জায়গায় শৌচাগার নির্মিত হলে ‘পবিত্রতা’ নষ্ট হবে। তবে আলিয়া মাদরাসার শিক্ষার্থীদের এ অভিযোগ অস্বীকার করে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ বলছে ওই শৌচাগার বা ওয়াশ ব্লক’র কারণে পবিত্রতা নষ্ট হওয়ার কোনো আশঙ্কা নেই এবং মাদরাসা থেকে নেয়া জায়গায় গোসলখানা ও সিভিল সার্জনের জায়গায় শৌচাগার নির্মিত হবে।

সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমান বলেন, এরকম একটি জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট কাজে বিরোধিতা করা, মাস্তানের মতো হামলা চালানো খুবই দুঃখজনক। ওয়াশব্লক নির্মাণের আগেই সিটি করপোরেশন মাদরাসা র্কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে অনুমতি নেয়। এমনকি তাদেরকে চিঠিও দেয়া হয়। এরপরও হামলা চালিয়ে সীমানাপ্রাচীর ভেঙে ফেলা হলো কাদের উসকানিতে।

পুলিশের উপস্থিতিতেই আলিয়া মাদরাসার শিক্ষার্থীদের হামলার বিষয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আবদুল ওয়াহাব বলেন, আসলে ঘটনাস্থলে যারা ছিলেন, তারাই ভালো বলতে পারবেন।

সিলেট কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌছুল হোসেন জানান, শৌচাগারের দেয়াল ভাঙার খবর পেয়েছি। এ ব্যাপারে এখনও কেউ থানায় অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech