ঝালকাঠিতে খুদে নাট্য কর্মীদের বিক্ষোভ

  

পিএনএস, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : সোমবার সন্ধ্যায় তিন দিন ব্যাপী বৈশাখী মেলার সমাপনী দিনে শিশু পার্ক মুক্ত মঞ্চে নাটক প্রদর্শনের করছিলেন ঝালকাঠির কিশোর থিয়েটার। এদের অধিকাংশ শিশু -কিশোর বয়সের। তাদের নির্ধারিত সময় আধা ঘন্টা হলেও ৭ মিনিটের সময় তাদের মঞ্চ থেকে নেমে যেতে বলেন আয়োজকরা। কিন্তু নাট্য কর্মিরা তাদের পুরো নাটক করতে দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে মঞ্চে অবস্থান নেয়।

এসময় স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের ঝালকাঠির দায়িত্বে ডিডি এলজি দেলোয়ার হোসেন মাতুব্বর নাট্য কর্মীদের সাথে দুর্ব্যবহার করে মঞ্চেল লাইট বন্ধ করে দিয়ে তাদের মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেয়। এরপর থেকেই তাদের মধ্যে ক্ষোভে ফেটে পরে নাট্যা কর্মিরা। ঘটনাস্থলেই তারা বিক্ষোভ মিছিল করে বিচার দাবী করে।

মঙ্গলবার সকাল থেকেই ঝালকাঠির পুরাতন ষ্টেডিয়ামের সামনে জড়ো হয়ে মানববন্ধন করে। দেড়টায় নাট্য কর্মিরা মিছিলসহকারে জেলা প্রশাসক কার্যলয়ের সামেন এসে আবারও মানববন্ধ করে করে। মানববন্ধন শেষ করে জেলা প্রশাসকের সাথে দেখা করতে গেলে জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক ক্ষুদে নাট্য কর্মিদের সাথে দেখা করবেনা বলে জানিয়ে দেয়। কিন্তু তারা নাছোরবান্ধা তার সাথে দেখা না করে যাবেনা। কিছুক্ষন পর পর তারা ডিডি এলজি দেলোয়ার হোসেন মাতুব্বরের বিচার চেয়ে শ্লোগান দেয়।

মানববন্ধ চলাকালে বক্তব্য রাখেন কিশোর থিয়েটার গ্রুপের পরিচালক স্বর্ন কিশোরী লাম আলিফ খান, সদস্য মাসুদুর রহমান, সাগর হাওলাদার, জান্নাতুল ফেরদৌস আসফি, ইশান চৌধুরী, হৃদয় দাস, শান্ত দেবনাথ, তানজিলা ইসলাম আবিদা ওরফে হাফসা আক্তার, আশিক হাওলাদার ও তানজিলা ইসলাম ইশা।

ক্ষুদে নাট্য কর্মীরা বলেন, বৈশাখী অনুষ্ঠানের তৃত্বীয় দিনে নারীর উন্নয়ন ও সমাজ সেবা মুলক নাটক ‘আমরাই পারি’ নির্ধারিত দেড় ঘন্টার নাটক সময়ের অজুহাতে সময় কমিয়ে আধা ঘন্টার শেষ করতে বলে। আমরা নাটক শুরু করার ৭ মিনিটের সময় আমাদের মঞ্চ থেকে নেমে যেতে বললে আমার পুরো নাটক প্রদর্শন করার অনুমতি চাই। কিন্তু ইতোমধ্যে মঞ্চর লাইট বন্ধ করে দেয়া হয়। সময় ডিডি এলজি দেলোয়ার হোসেন মাতুব্বর নারী নাট্য কর্মিদের সাথে দূর্ব্যবহার করে মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেয়। আমরা এই অপমানের বিচার চাইব কার কাছে? এ ঘটনায় বিচার চাইতে ডিসি স্যারের কার্যলয় গেলেও ২ ঘন্টা সময় অপেক্ষ করে তার সাথে আমরা দেখা করতেই পারিনি। তিনি দেখা না করা পর্যন্ত আমরা তার কক্ষের সামনে থেকে বাসায় যাব না।

বাংলাদেশ মানবাধিক কমিশনের ঝালকাঠি জেলা সাধারন সম্পাদক সংগঠক আবু সাঈদ খান বলেন, কোমল মতি শিশু কিশোরদের সাথে দূর্ব্যবহার করা ঠিক হয়নি। এতে তারা সাংস্কৃতিক অঙ্গন থেকে দুরে সরে যাবে। মাদকে জড়িয়ে যেতে পারে। তাই তাদের খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ধরে রাখতে হবে।

এ ব্যাপারে ডিডি এলজি দেলোয়ার হোসেন মাতুব্বর বলেন, পুরো অনুষ্ঠান ডিসি স্যারের নির্দেশক্রমেই সাজানো হয়েছে। ওদের নাটকের পারর্ফমেন্স খারাপ থাকায় তাদের মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেয়া হলেও কারও সাথে অসৌন্যমূলক আচারন করা হয়নি। তিনি সাংবাদিকদের এ ঘটনায় জেলা প্রশাসকের সাথে আলাপ করতে পরামর্শ দেন।

এ ব্যপারে জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক বলেন, ‘এমন অভিযোগে ওরা আমার সাথে দেখা করতে আসলেও আমার সাথে দেখা হয়নি। ওরা অপেক্ষা করুক, ওদের সাথে দেখা হবেনা’।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech