সুন্দরগঞ্জে তিস্তার ভাঙ্গণ অব্যাহত, ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন

  

পিএনএস, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধ) থেকে আঃ মতিন সরকার : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তিস্তা নদীর ভাঙ্গণ প্রবল আকারে অব্যাহত রয়েছে। যার কারণে উঠতি ফসলসহ আবাদি জমি ও ঘর-বাড়ী নদী গর্ভে বিলিন হচ্ছে দিনের পর দিন। নদী ভাঙ্গণ ঠেকাতে স্থায়ীভাবে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় অসময়ে এই ভাঙ্গণ দেখা দেয়।

উপজেলার তারাপুর, বেলকা, হরিপুর, চন্ডিপুর, শ্রীপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত রাক্ষুসি তিস্তা নদী। গোটা বছরেই প্রায় নদী ভাঙ্গণ অব্যাহত থাকে। উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের উরুয়ারবাতা ও সুইচ গেট এবং কাপাসিয়া ইউনিয়নের লালচামার ও হরিপুর ইউনিয়নের মাদারী পাড়া এলাকায় নদী ভাঙ্গণ ব্যাপক হারে দেখা দিয়েছে। গত ১০ দিনের ব্যবধানে ভাঙ্গণের কবলে শতাধিক একর আবাদি জমি উঠতি ফসলসহ প্রায় ২ হাজার ঘর-বাড়ী নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে।

এছাড়া, হরিপুর খেয়াঘাট , কানি চরিতাবাড়ী,লখিয়ার পাড়া,চর মাদারী পাড়া এলাকায় ভাঙ্গণ দেখা দিয়েছে। মাদারী পাড়ার আঃ রশীদ জানান, এ বছরে তার বাড়ী দুইবার ভেঙ্গেছে। বর্তমানে তিনি আশ্রয় কেন্দ্রে এসে আশ্রয় নিয়েছেন। তিনি আরও বলেন- ঘরবাড়ী সরাতে তার সম্বল শেষ হয়ে গেছে। যার কারণে তাকে এখন খেয়ে না খেয়ে জীবন যাপন করতে হচ্ছে।

হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান- নাফিউল ইসলাম জিমি জানান- হরিপুর ইউনিয়নের বেশ কিছু এলাকায় প্রায় সারা বছরেই নদী ভাঙ্গণ চলতে থাকে। যার কারণে এই ইউনিয়নের মানুষ অতিকষ্টে জীবন যাপন করে আসছে। চরের মানুষকে সারা বছর ঘর-বাড়ী সরানোর জন্য সব সময়ে প্রস্তুত থাকতে হয়। চেয়ারম্যান স্থায়ীভাবে নদী ভাঙ্গণ রোধের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষের নিকট প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবী জানান।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech