টাঙ্গাইলে বাসরঘরে দুলাভাই…

  

পিএনএস, টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলায় বাসরঘরে ঢুকে এক নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় রতন মিয়া (২৬) নামে ওই ধর্ষককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

বুধবার বিকালে উপজেলার ভাওড়া ইউনিয়নের শশধরপট্টি গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়।

জানা গেছে, ১৪ ডিসেম্বর উপজেলার চান্দুলিয়া গ্রামের ইনাম আলীর মেয়ে রত্না বেগমের সঙ্গে উপজেলার শশধরপট্টি গ্রামের দেলুয়ারের ছেলে আলমগীরের বিয়ে হয়। বিয়ে শেষে ওইদিন নববধূ স্বামীর বাড়ি শশধরপট্টি গ্রামে যান।

রাতে বাসর ঘরে স্বামীর উকিল বোনের জামাই একই গ্রামের শাজাহানের ছেলে রতন মিয়া স্বামী আলমগীরকে ফুঁসলিয়ে ঘরের বাহিরে পাঠিয়ে নববধূ রত্নাকে ধর্ষণ করে। লোকলজ্জার ভয়ে রত্না বিষয়টি কাউকে জানায়নি।

পরদিন নববধূ স্বামীসহ বাপের বাড়ি চান্দুলিয়া গ্রামে ফিরানীতে আসেন। কুলধরা হিসাবে বর কনের সঙ্গে রতন মিয়াও রত্নার বাপের বাড়ি আসেন। রাতে একই কায়দায় রত্নাকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে রত্না বিষয়টি তার বাড়ির লোকজনকে জানান। পরে বাড়ির লোকজন রতন মিয়াকে আটক করে।

খবর পেয়ে স্বামীর বাড়ির লোকজন বিচারের কথা বলে রতন মিয়াকে ওইদিন ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। কিন্ত এর কোনো সুষ্ঠু বিচার না হওয়ায় এলাকার লোকজন বুধবার বিকালে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মেম্বার ও চকিদারদের সঙ্গে নিয়ে রতন মিয়াকে শশধরপট্টি গ্রামে তার বাড়ি থেকে ধরে এনে পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) উমর ফারুক জানান, নববধূ ও অভিযুক্ত রতন মিয়াকে থানায় আনা হয়েছে। রত্নার অভিযোগের প্রেক্ষিতে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

পিএনএস/মো.সাইফুল্লাহ/মানসুর

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech