বরিশালে ইলিশের কেজি ৩০০ টাকা

  

পিএনএস, বরিশাল প্রতিনিধি : ‘বরিশালের ইলিশ, কেজি মাত্র ৩০০’, ‘বড় বড় ইলিশ, দেইখ্যা-শুইন্যা-বাইছ্যা লন’, ‘শ্যাষ হইলে পস্তাইবেন’, ‘আর মাত্র কয়েক দিন’এ রকম নানা শ্লোগান দিচ্ছে বরিশালের মাছ বাজারে। গত এক সপ্তাহ ধরে দাম কমায় মৌসুমে টাটকা ইলিশের স্বাদ নিতে পোর্ট রোড মাছ বাজারে আড়তে প্রতিদিন মাছ কিনতে আসছেন ক্রেতারা। মাছ বাজারে ভিতরে ঢুকলেই ক্ষুদ্র মাছ ব্যাবসায়ীরা ঢেকে ঢেকে ক্রেতাদের কাছে ইলিশ মাছ বিক্রি করছে। ইলিশের দামও আগের চেয়ে অনেকটা কমেছে।

বাজারের ইলিশ বিক্রেতারা জানিয়েছেন, এ বছর ইলিশের মৌসুম শুরু হওয়ার কয়েক মাস পর্যন্ত নদীতে ইলিশ তেমন পড়েনি। দামও ছিল তুলনামূলক বেশি। এখন শেষ সময়ে এসে ইলিশ পড়ছে, দামও ব্যাপক কমেছে, সবাই ইলিশও কিনছে। বিশেষ করে মধ্যবিত্ত শ্রেণির লোকজন ইলিশ কিনতে বাজারে ভিড় জমাচ্ছেন। কারন ২৫০ টাকা কেজিতেও ইলিশ পাচ্ছে।

এ ছাড়া আগামী ৭ থেকে ২৮ অক্টোবর মোট ২২ দিন ইলিশ ধরা, বিক্রি, পরিবহন, মজুত, বাজারজাতকরণ ও বিনিময় নিষিদ্ধ করায় ক্রেতারা ইলিশ কেনায় ঝুঁকছেন। বিক্রেতারাও দাম কমিয়েছেন। নগরের চৌ-মাথা বাজার, নতুন বাজার,নতুল্লাবাদ বাজারসহ বরিশালের বিভিন্ন বাজারেই শস্তা দামে বিক্রি হচ্ছে ইলিশ। বিভিন্ন মহল্লায় ভ্যানেও মাথায় করেও ইলিশ বিক্রি হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ৫০০-৬০০ গ্রামের ইলিশ ৭-৮’শ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। তাছাড়াও রয়েছে বিভিন্ন সাইজের মাছ। যার দাম তার অধেক। মোটামুটি সাইজের ইলিশ ৩০০ টাকা কেজি দরেই বিক্রি হচ্ছে বেড়ি। পোর্ট রোড বাজারে প্রতিদিন সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত ঢেকে ঢেকে ইলিশ বিক্রির প্রতিযোগিতা চলছে। মাছ বিক্রেতা শাওন বলেন, ১ সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন চার-পাঁচ মণ করে ইলিশ বিক্রি করছি। আমার মতো অনেকেই এই বাজারে বিক্রি করছে।

সিয়াম মসৎ আড়ৎ’র পাইকারী বিক্রেতা বাবুল জানায়,আমরা আগে কয়েক ধরনের মাছও বিক্রি করতাম। কিন্তু এখন শুধু ইলিশ মাছই বিক্রি করছি। এছাড়াও বেশ কয়েক জন বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বরিশালে যে ইলিশ বিক্রি হয় তার বেশির ভাগ আসে পাথরঘাটা, চরদুয়ানি থেকে। বাজারে ইলিশ কিনতে আসা সুমন বলেন, কয়েক দিন পর নিষেধাজ্ঞা শুরু হচ্ছে। আর দাম আগের চেয়ে অনেক কমেছে। তাই বেশি করে ইলিশ কিনতে এসেছেন। ৩৫০ টাকা হিসাবে ৪ কেজি ইলিশ কিনেছি। কারন আমি ছোট খাটো একটি চাকরি করি তাই বেশি দাম দিয়ে কেনা আমার পক্ষে সম্ভাব নয়। তাই দাম কম পেয়ে কিনেছি। ফ্রিজে রেখে রেখে খাবো।

বরিশাল মৎস আড়ৎদার সমিতির সাধারন সম্পাদক নিরব হোসেন টুটুল বলেন, পটুয়াখালীর বিভিন্ন মোকাম থেকে বরিশাল বাজারে প্রচুর ইলিশ আসছে। স্থানীয় নদনদীতেও জেলেরা ইলিশ পাচ্ছেন। তিনি বলেন, মা ইলিশ রক্ষাকালীন নিষেধাজ্ঞা এবং জাটকা ইলিশ শিকারকালীন নিষেধাজ্ঞা যথাযথভাবে পালন করায় এভাবে ইলিশের ব্যাপক বিস্তার ঘটেছে। সরবরাহ বাড়ায় ক্রেতা আকর্ষণে বিক্রি করা হচ্ছে রূপালি ইলিশ। সস্তায় স্বাদের সে মাছ কিনতে ক্রেতারাও ভিড় জমাচ্ছেন আমাদের এই বাজারে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech