আজ কুষ্টিয়ার ছেউড়িয়ায় শুরু হচ্ছে লালন মেলা

  



পিএনএস ডেস্ক: আজ (মঙ্গলবার) থেকে কুষ্টিয়ার ছেউড়িয়ায় শুরু হচ্ছে তিন দিনব্যাপী বাউলসম্রাট মরমী সাধক ফকির লালন সাঁইয়ের ১২৮তম স্মরণোৎসব (মৃত্যুবার্ষিকী) ও লালন মেলা। এ উপলক্ষে সাঁইজির বারামখানার আখড়াবাড়িতে বসছে সাধুরহাট। ইতোমধ্যেই আখড়াবাড়ি সাধু-ভক্তদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে।

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় ও জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় কুষ্টিয়া লালন একাডেমির আয়োজনে তিরোধান দিবস পালন উপলক্ষে আখড়াবাড়িতে সকল প্রস্তুতি এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। সাঁইজির মুক্তমে প্রস্তুত করা হচ্ছে আলোচনাসভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সেইসঙ্গে মাজার প্রাঙ্গণে নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

রোববার সরেজমিনে সাঁইজির আখড়াবাড়ির ভেতরে গিয়ে দেখা যায়, অনেক দূর-দূরান্তের সাধু-ভক্তরা এরই মধ্যে চলে এসেছেন। তারা বলছেন, আত্মার টানে আত্মার শুদ্ধির জন্য এখানে এসেছেন।

মেহেরপুর থেকে এসেছেন ফকির দাউদ হোসেন। তিনি বলেন, সাঁইজির তিরোধান দিবস উপলক্ষে আমরা এখানে এসেছি। এখানে আসলে আমাদের মনের কাছ থেকে ভালো লাগে। সাঁইজির বাণীগুলো কানে ভাসে। তাই আগে-ভাগেই চলে এসেছি।

ছেউড়িয়া লালন মাজারের খাদেম মোহম্মদ আলী শাহ জানান, ১২৯৭ বাংলা সনের ১ কার্তিক, ১৮৯০ সালের ১৭ অক্টোবর আধ্যাত্মিক বাউল সাধক লালন শাহের মৃত্যু হয়। তার তিরোধান দিবসকে কেন্দ্র করে প্রতিবছর ভক্তরা এ উৎসব পালন করতে সমবেত হয়ে থাকেন।

রোববার অনুষ্ঠানের সার্বিক বিষয়াদি নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে লালন একাডেমির সভাপতি ও কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন জানান, ফকির লালন শাহের ১২৮তম তিরোধান দিবস উপলক্ষে এবারে তিন দিনব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়েছে। ইতোমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এবারের লালন মেলায় নিরাপত্তার জন্য ৯ জন ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। সেইসঙ্গে পুলিশ, র্যাব, গোয়ন্দো পুলিশ, আনসার সদস্য এবং লালন একাডেমির স্বেচ্ছাসেবকরা নিয়োজিত থাকবেন।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech