সরাইলে সরকারের সাফল্য ও উন্নয়নমূলক প্রতিবেদন প্রকাশে সাংবাদিকদের সহযোগিতা করছে না ইউএনও’র কার্যালয়!

  

পিএনএস, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) থেকে মোঃ রাকিবুর রহমান রকিব : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের মহৎ উদ্যোগ "যার জমি আছে ঘর নেই" এই প্রকল্পের অধীনে সরকার অতিসম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় বেশকিছু হতদরিদ্র (যাদের জমি আছে তবে বসবাসের ঘর ছিল না) পরিবারকে সুন্দর পরিবেশে ঘর বানিয়ে দিয়েছেন। এছাড়াও উপজেলার কিছু এতিমখানা, মাদ্রাসা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান উন্নয়নে বিশেষ টি.আর বরাদ্দ ২৫ মেট্টিক টন অর্থ্যাৎ টনপ্রতি নগদ ৪০,০০০ টাকা সর্বমোট বরাদ্দ নগদ ১০,০০,০০০ টাকা।

সরকারের এ দুটি মহৎ উদ্যোগে এখানকার বাস্তবায়ন প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের অনুভূতি সহ সচিত্র প্রতিবেদন তৈরির লক্ষ্যে গত ১৬ অক্টোবর মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ে যান সরাইল উপজেলা রিপোর্টার্স ইউনিটি'র তিনজন সদস্য মোঃ আরিফুল ইসলাম সুমন, মোঃ তাসলিম উদ্দিন ও মোঃ রাকিবুর রহমান রকিব।

সাংবাদিকদের এই উদ্যোগে প্রথমে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো সাইফুল ইসলাম সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, আপনাদের (সাংবাদিক) এ উদ্যোগের কারণে এখানকার উন্নয়নে সরকার কোটি কোটি টাকার বরাদ্দে যেইসব উন্নয়নমূলক কাজ করিয়েছে তা এখন অধিক জনসন্মূখে প্রচার হবে। এসব সাংবাদিকদের জানিয়ে তিনি (পিআইও) দুপুরের খাবার খেতে অফিস থেকে বেরিয়ে যাওয়ার মূহূর্তে জানান অফিস সহকারী সফিক সাহেব বাস্তবায়িত দুটি প্রকল্পের তালিকা দিবেন।

পিআইও`র সহকারী মোঃ সফিক মিয়া সাংবাদিকদের সঙ্গে দীর্ঘ সময় আলাপচারিতা ও চা`আপ্যায়ন শেষে তিনি বলেন, ভাই পিআইও স্যার অফিসে না আসা পর্যন্ত এই তালিকা দেয়া সম্ভব নয়। কারন তার অধীনে আমি চাকুরী করি।

এদিকে পিআইও'র মুঠোফোন বন্ধ, সাংবাদিকদের অপেক্ষা। বিকাল সোয়া চার'টার দিকে দেখা গেল পিআইও, উপজেলা পরিষদ চত্বরের পশ্চিমদিকে পুকুরপাড়ে পায়চারি করছেন। সাংবাদিকরা তার কাছে এগিয়ে গিয়ে জানতে চান উন্নয়ন তালিকা দুটি দেওয়া যাবে কি না ? তখন পিআইও অনেকটা হতভম্ব হয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আপনারা এখনো আছেন। তবে একটু অপেক্ষা করুন, আমি বাংলো থেকে ইউএনও স্যারের সাথে দেখা করে আসতেছি, আপনারা যাবেন না।

এখানেও অপেক্ষা। বিকাল সাড়ে পাঁচ`টা তড়িঘড়ি অফিসে ঢুকেই তালিকা দেয়ার পরিবর্তে পিআইও সাংবাদিকদের কলা, বিস্কুট ও কফিতে আপ্যায়নে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তালিকা দুটির প্রসঙ্গ তুললেই তিনি কৌশল খাটিয়ে ভিন্ন প্রসঙ্গে কথা শুরু করেন।

একপর্যায়ে সাংবাদিকরা ক্ষুব্ধ মনে বেরিয়ে আসার সময়ে পিআইও সাইফুল ইসলাম বলেন, ভাই মনে কষ্ট নিবেন না। আসল বিষয় হলো ইউএনও স্যারের বদলির আদেশ হয়েছে। স্যার চেষ্টা করতেছেন বদলি প্রত্যাহারের জন্য। তাই স্যারের মনটা তেমন ভালো না। এ জন্য আপনাদের বিষয়টি এখন সমাধান দিতে পারছি না।

আগামি সোমবার এ তালিকার বিষয়টি নিয়ে বসে সমাধান দিব। তখন সাংবাদিকরা পিআইওকে বলেন আমরা কোনো বিষয়ে বসাবসি করতে আসেনি, এসেছিলাম উন্নয়ন বাস্তবায়ন প্রকল্পের তালিকা সংগ্রহ করতে।

এ বিষয়ে সরাইল উপজেলা রিপোর্টার্স ইউনিটি`র আহবায়ক মোঃ নুরুল হুদা হতাশা প্রকাশ করে বলেন, আমরা ইতিবাচক সাংবাদিকতায় বিশ্বাসী। সরকারের নানা উন্নয়নমূলক কাজের সুফলভোগীদের কথা আমরা প্রকাশ করতে চাই। কিন্তু এ কাজে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সাংবাদিকদের সহযোগিতা করতে আন্তরিকতা দেখাচ্ছে না। বিষয়টি দুঃখজনক।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech