হাতুড়ে ডাক্তারের হাতে নবজাতকের মৃত্যু

  


পিএনএস বরিশাল: বরিশালের আগৈঝাড়ায় এক হাতুড়ে ডাক্তারের ডেলিভারীতে প্রাণ গেল নবজাতকের। ঘটনাটি ধামাচাপা দিয়ে ভুক্তভোগী প্রসূতির পরিবারকে ম্যানেজ করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে ওই হাতুড়ে ডাক্তার ও তার লোকজন।

উপজেলার পয়সারহাট গ্রামের উজ্জল বেপারীর স্ত্রী রিপা বেগমের (২৫) বৃহস্পতিবার রাতে প্রসব বেদনা শুরু হলে প্রাথমিকভাবে স্থানীয় হাতুড়ে ডাক্তার মাসুদুর রহমান ঠান্ডাকে ডেকে আনেন। ওই হাতুড়ে ডাক্তার রীপাকে দেখে বাড়ি বসেই নরমাল ডেলিভারী হবে জানিয়ে গর্ভবতী মাকে অন্যস্থানে নিতে নিষেধ করে ও বাড়িতেই ডেলিভারী করান।

নবজাতক শিশুর হাত পা টেনে হিঁচড়ে বহু কষ্টে ডেলিভারী করানোর ফলে ভূমিষ্ট হওয়া ছেলে সন্তানটি নিস্তেজ হয়ে পড়ে এবং জন্মের কিছু সময় পরেই নবজাতক শিশুটি মারা যায়।

প্রসূতি রিপা বেগমের ভাই কাওসার বেপারী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তিনি নিজে পয়সারহাট জেনারেল হাসপাতালের অডিটর। তিনি অসুস্থ থাকায় তাকে বোনের ডেলিভারীর বিষয়টি না জানিয়ে অনভিজ্ঞ হাতুড়ে ডাক্তার মাসুদুর রহমান শিশুকে মেরে ফেলেছে।

এ ঘটনার বিচার দাবি করায় তার বোনের পরিবারকে অভিযুক্ত হাতুড়ে ডাক্তার মাসুদুর রহমান ও তার লোকজন বিভিন্নভাবে ম্যানেজ করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা হাসপাতালের স্বাস্থ্য, পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আলতাব হোসেন সাংবাদিকদের জানান, প্রসূতি মাকে হাসপাতাল এনে প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত ডাক্তার বা নার্স দিয়ে ডেলিভারী করানো হয়। বাড়িতে বসে ডেলিভারী করানোয় নবজাতকের মৃত্যু হওয়ায় অভিযুক্ত হাতুড়ে ডাক্তার মাসুদুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রিপার স্বামী উজ্জল বেপারী জানান, কোন ডাক্তার দিয়ে নয় ডেলিভারী করেছেন তার চাচী। আল্লাহর মাল আল্লাহ নিয়ে গেছে। নসিবে ছিল না, তাই তার সন্তান মারা গেছে। এজন্য তার কোন অভিযোগ নেই।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech