ঝালকাঠিতে সংখ্যালঘু স্বামী-স্ত্রীকে দোকানে আটকে আগুন দিয়ে পুড়য়ে হত্যার চেষ্টা

  

পিএনএস, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলায় এক দম্পতিকে নিজেদের দোকানে আটকে রেখে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটানায় ওই দম্পতি প্রাণে বেঁচে গেলেও লেলিহান আগুনে কয়েক লক্ষ টাকার মালামালসহ পুরো দোকানটি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। বুধবার গভীর রাতে রাজাপুর উপজেলার শুক্তাগর ইউনিয়নের শুক্রাগড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা এবং ক্ষতিগ্রস্থ সংখ্যালঘু পরিবারের লোজজন জানায়, রাজাপুর উপজেলা সদর থেকে ৬ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে শুক্তাগর গ্রামে বংশ পরমপরায় বসবাত করে আসছেন গোপাল বিশ্বাসের পরিবার। বাড়ির পাশেই চাল-ডাল তেলসহ একটি মুদি দোকান বসিয়ে গোপাল বিশ্বাস তার স্ত্রী মঞ্জু বিশ্বাস এবং বড় ছেলে সাগর বিশ্বাসকে নিয়ে ব্যবসা চালিয়ে আসছেন। বুধবার রাত ১০টার দিকে দোকান আটকে ছেলে সাগর বাড়িতে চলে যায়। আর দোকানের মধ্যে তার বাবা গোপাল এবং মা মঞ্জু ঘুমিয়ে পড়েন। দোকান পাহারা দেয়ার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে এমনটি করে আসছেন স্বামী-স্ত্রী। পরে রাত দুটার দিকে হঠাৎ আগুনের তাপে স্বামী-স্ত্রীর ঘুম ভেঙে যায়। এসময় দোকানের দরজা বাইরে থেকে আটকানো দেখতে পেয়ে টিনের চাল ভেঙে স্বামী-স্ত্রী লাফিয়ে পড়ে কোনমতে প্রাণ রক্ষা পান। খবর পেয়ে দমকল কর্মীরা ঘটনা স্থলে এলেও লেলিহান আগুনে প্রায় ১৫ লাখ টাকার সম্পদসহ দোকানটি সম্পূর্ন পুড়ে যায়। গত ২০১৪ সালেও এ পরিবারটির মন্দিরে আগুন দেয়া হয় জানিয়ে সাধারণ মানুষসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিরাও এ ঘটনাকে পরিকল্পিত বলে উল্লেখ করেছেন। সেই সাথে এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেছেন তারা। এদিকে এ ঘটনায় ভয় আর আতংকগ্রস্থ হয়ে পড়েছে সংখ্যালঘু পরিবারটি। তারা প্রকাশ্যে স্থানীয় পূর্ব শত্রুদের নাম বলতেও ভয় পাচ্ছেন এখন।

এ ব্যাপারে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে রাজাপুর থানার পরিদর্শক (ওসি) জানান, এ ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। কেবা কারা অগুন লাগিয়েছে তা এখনও নিশ্চিত না হওয়া গেলেও তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে জানান ওসি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল




 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech