পাইকগাছায় মধ্যযুগীয় কায়দায় বেঁধে বৃদ্ধাকে নির্যাতন

  

পিএনএস, পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : খুলনার পাইকগাছায় দুর্বৃত্তরা মধ্যযুগীয় কায়দায় হতদরিদ্র বৃদ্ধা সখিনা (৬৫)কে বেঁধে নির্যাতন চালিয়েছে। তান্ডব চালিয়ে বৃদ্ধার বসতবাড়ি ভাংচুর সহ তছনছ করে ক্ষয়-ক্ষতি করেছে আসবাবপত্র। দাদীকে ঠেকাতে এইচএসসি পরিক্ষার্থী পুতনি কেয়া এগিয়ে এলে তাকেও মারপিট করে দুর্বৃত্তরা। উপজেলার সিলেমানপুর গ্রামে এমন বর্বরচিত ঘটনা শনিবার (২৩মার্চ) সকাল ৯ টার দিকে ঘটেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দা, কুড়াল, ৪টি মটরসাইকেল সহ ৪ জনকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বসতবাড়ির ২৫ শতক জমি নিয়ে স্থানীয় আব্দুল গাজী ও তাঁর চাচাতো বোন সখিনা (৬৫) এর সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে মিমাংসার জন্য কয়েক দফা শালিশী বৈঠক হলেও কোনো সমাধান মেলেনি। প্রতিবেশীদের অভিযোগ বৃদ্ধার ৩ ছেলে যশোর জেলায় ইটের ভাটায় কর্মরত অবস্থায় শনিবার সকালে আব্দুল গাজীর ছেলে ইউসুফ-ইউনুছের নেতৃত্বে বহিরাগতরা রান্না করা অবস্থায় সখিনাকে বেঁধে ফেলে অল্প সময়ে তান্ডব চালিয়ে বসত ঘর ভাংচুর করে আসবাবপত্র, ভাতের হাড়ী ও পরিক্ষার্থী পুতনির ব্যবহৃত পোশাক বই-খাতা পাশের পুকুরে ফেলে দেয়। আহত সখিনা অভিযোগ করেন চাচাতো ভাই আব্দুল্লার ছেলের স্ত্রী মঞ্জুয়ারা, হাফিজা তাঁর হাত-বেঁধে ওদের স্বামী ও বহিরাগতরা মারপিট করে তান্ডব চালিয়ে ভাংচুর করে ক্ষয়-ক্ষতি করেছেন।

এইচএসসি পরিক্ষার্থী কেয়া জানান, প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ঢুকে দেখি ভাংচুর চলছে, দাদী সখিনার হাত-বাঁধা কান্না কাটি করছে সব কিছুই তছনছ। প্রতিবাদ করলে সন্ত্রাসীরা আমাকে মারপিট করে। বই খাতা পুকুরে, পরীক্ষার কি হবে? ওই ছাত্রী এখন মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছেন বলে জানান স্থানীয়ারা। খবর পেয়ে থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই আবু সাঈদ, প্রভাষ মিত্র, লিটন অধিকারী ঘটনাস্থলে পৌঁছে বহিরাগতদের ৪টি মটর সাইকেল, দা-কুড়াল উদ্ধার করে ইউসুফ গাজী, মোস্তফা, মঞ্জুয়ারা ও হাফিজাকে আটক করেছেন।

ওসি এমদাদুল হক শেখ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এ জঘন্যতম ঘটনায় মামলা হবে বলে জানিয়েছেন। এলাকাবাসী এ ঘটনায় জড়িত দুর্বৃত্তদের উপযুক্ত বিচারের দাবী জানান।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল




 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech