ইফতারকে কেন্দ্র করে মসজিদ কমিটির সম্পাদককে পেটালেন মোহাম্মদপুর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা

  

পিএনএস ডেস্ক : মাগুরা সদর উপজেলার বেরইল পলিতা গ্রামের বেরইল দক্ষিণ পাড়া জামে মসজিদের সাধারণ সম্পাদক তাজেনুর মিয়াকে মসজিদে ইফতার দেয়া নিয়ে অতর্কিত হামলা করে বেধড়ক পিটিয়েছেন ঐ গ্রামেরই বাসিন্দা মোহাম্মদপুর উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তা কাজী জয়নুর রহমান উজ্জ্বল।

এলাকা বাসী সূত্রে জানা যায়, তাজেনুর মিয়া দীর্ঘদিন যাবত বেরইল দক্ষিণ পাড়া জামে মসজিদের কখনো সভাপতি কখনো সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। একই সাথে তিনটি পদ নিয়ে বসে আছেন এই শিক্ষক।

উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তা কাজী জয়নুর রহমান উজ্জ্বল জানান সোমবার সন্ধ্যায় মসজিদে ইফতার না দেয়ায় বাজারের বটতলায় অবস্হিত চায়ের দোকানে তাজেনুর চড়াও হয় ঐ গ্রামের বাসিন্দা তার বড় শ্যালক শিমুলের উপর। শিমুল প্রতিবাদ করলে তাজেনুর ও তার সহযোগী, খোকন, টোকনসহ অন্যরা শিমুলকে কিল ঘুষি মেরে জখম করে। পরে শুনতে গেলে আবারো মহিলাদের উপর হামলা করে তারা।

তবে এ ব্যাপার তাজেনুর মিয়া শিমুলের উপর হামলার কথা অস্বীকার করেন। তিনি বলেন বিপ্লবের দোকানে উজ্জ্বলের স্ত্রী মুক্তার নেতৃত্বে মহিলারা এসে আমাকে হামলা করে। আমি চেয়ারম্যানকে ব্যাপারটা জানিয়ে স্থানীয় ভাবে সমাধান করার চেষ্টা করবো। স্হানীয় পর্যায়ে ন্যায়বিচার না পেলে সমাজসেবা অফিসার উজ্জ্বল ও হামলা কারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্হা নিব। তিনি আরো যুক্ত করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী বিপ্লব বলেন, শিমুলের ভগ্নিপতি কাজী জয়নুর রহমান উজ্জ্বল লোকজনসহ হাতুড়ি ও লাঠি নিয়ে তারাবির নামাজের পূর্ব মূহুর্তে আমার দোকানের সামনে তাজেনুরকে আক্রমন করে আহত করে। এ সময় সমাজসেবা কর্মকর্তা কাজী জয়নুর রহমানের স্ত্রী মুক্তা সহ প্রায় ২০-২৫ জন মহিলা তাজেনুর কে ঝাটা পেটা করে। পরবর্তীতে এলাকাবাসী তাজেনুর কে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরন করে।

বিপ্লব আরো জানান, তিনি বাজার কমিটিকে লিখিত দিবেন। তাতে সমাধান না হলে আইনের সাহায্য নিবেন। তাজেনুর মিয়া একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করছেন পাশাপাশি স্হানীয় একটি বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech