মোরেলগঞ্জে ৭ গ্রামের মানুষের ভরসা একটি ভাঙ্গা পুল

  

পিএনএস, মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি : বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের জিউধরা ইউনিয়নের কুরুপেরধাইড়-ডেউয়াতলা পদ্মপুকুর পাড় সংযোগ খালের কাঠের পুলটি র্দীঘদিন যাবৎ জরার্জীণ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। সাত গ্রামের মানুষের একমাত্র ভরসা এ ভাঙ্গা পুলটি। প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। স্কুল, কলেজ, মাদরাসার শিক্ষার্থীসহ হাজারো মানুষের ভোগান্তি এখন চরমে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কুরুপের ধাইড়, পদ্মপুকুর পাড়, ডেউয়াতলা, সংযোগ খালের ১ ও ৩ নং দুটি ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের বসবাস। জনসংখ্যা রয়েছে প্রায় ৫ হাজার। এ ছাড়াও চারাখালি, ডেউয়াতলা, হাওলাডাঙ্গা, গাজি বাড়ি, সরর্দার পাড়া, সনিরজোড়, ফুলহাতা ও ঘষিয়াখালী এলাকার মানুষের চলাচলের মাধ্যম এ জরাজীর্ণ পুলটি।

এ পুল পার হয়ে প্রতিদিন শিক্ষা গ্রহনের জন্য যাতায়াত করতে হচ্ছে সোমাদ্দারখালী দক্ষিণ বাংলা কলেজ, টেকনিক্যাল কলেজ, হাজী রাজাউল্লাহ্ মাধ্যমিক বিদ্যালয়,সোমাদ্দারখালী ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা, সোমাদ্দারখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ব কুরুপেরধাইড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ডেউয়াতলা কে সি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ডেউয়াতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও খনির খন্ড দাখিল মাদ্রাসসহ অন্তত ১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী। এ ছাড়াও রয়েছে ৩টি মসজিদ ও শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য একটি কিন্ডার গার্টেন।

পুল পারাপারের সময় কথা হয় পথচারি আ.সত্তার হাওলাদার (৭৫), জাহাঙ্গীর শেখ (৫৫), মো. রুস্তুম আলী হাওলাদার (৭০), বিপ্লব মোল্লা (৩২), শিক্ষক শাহাজাহান শেখ(৪৫), শিক্ষার্থী মো.রুবেল মুন্সি, রুপম, তামান্না ইয়াসীনসহ অনেকের সঙ্গে এসব পথচারী বলেন, ১০/১২ বছর পূর্বে ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে এ কাঠের পুলটি নির্মাণ করা হয়। পরবর্তীতে আর কোন সংস্কার হয়নি। দু বছর পূর্বে কয়েকখানা কাঠের তকতা দিয়ে নামেমাত্র সংস্কার করা হয়েছিলো।

এলাকাবাসী কাঠের পুলটি পূন:সংস্কারের পরিবর্তে একটি কালভাট নির্মাণের দাবি জানান।

এ বিষয়ে জিউধরা ইউপি চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলম বাদশা জানান, তিনি নির্বাচিত হওয়ার পরে ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে একবার পুলটি সংস্কার করেছিলেন। পুন:রায় সংস্কারের জন্য পরিষদের সভা করে রেজুলেশন আকারে এলজিএসপিতে বরাদ্ধের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech