আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়ে...!

  

পিএনএস ডেস্ক : আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার পর প্রিজন ভ্যানে তোলা হচ্ছিল দুই আসামিকে। ওই মুহূর্তে হাতকড়া পরা অবস্থায় পালিয়ে যান তাঁরা। পরে দেড় ঘণ্টা পর একটি পুকুর থেকে আবার গ্রেপ্তার করা হয় তাঁদের।

রাজবাড়ীতে গতকাল বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে। পালিয়ে যাওয়া দুই আসামির নাম শাকিল প্রামাণিক (২১) ও সহিদুল সরদার (২৩)। শাকিলের বাড়ি রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ ঘাট থানার নলিয়াপাড়া গ্রামে। সহিদুলের বাড়ি সদর উপজেলার খানখানাপুর মল্লিকডাঙ্গী গ্রামে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মোটরসাইকেল চুরির দুটি পৃথক মামলায় আটজন আসামিকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিচারিক হাকিম সুধাংশু শেখর রায়ের আদালতে হাজির করানো হয়। আদালতে তাঁরা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। রাত সোয়া আটটার দিকে ওই ৮ আসামিসহ মোট ২৩ আসামিকে কারাগারে নেওয়ার জন্য আদালত চত্বর থেকে প্রিজন ভ্যানে তোলা হচ্ছিল। এ সময় দায়িত্বরত এক পুলিশ সদস্যকে ধাক্কা দিয়ে হাতকড়া পরা অবস্থায় পালিয়ে যান শাকিল ও সহিদুল। পরে রাত ১০টার দিকে পৌরসভা এলাকার একটি পুকুর থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়।

শাকিলের মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজবাড়ী সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আতাউর রহমান বলেন, দুটি মামলার মধ্যে একটিতে শাকিলসহ আসামি পাঁচজন এবং আরেকটি মামলায় সহিদুলসহ আসামি তিনজন। আদালতে তাঁরা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর কৌশলে পালিয়ে গেলেও কিছুক্ষণ পর আবার গ্রেপ্তার করা হয় তাঁদের।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. সালাউদ্দিন বলেন, ‘সন্ধ্যার পর ওই এলাকা কিছুটা অন্ধকার ছিল। এর সুযোগ নিয়ে দুই আসামি হাতকড়া পরা অবস্থায় পালিয়ে যান। একটি পুকুরে আত্মগোপন করে আছেন তাঁরা, এমন খবর পেয়ে আমরা পুরো এলাকা ঘিরে ফেলি। প্রায় দেড় ঘণ্টা পর ওই পুকুর থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।’

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech