রঙ তুলির আঁচড়ে প্রস্তুত হচ্ছে প্রতিমা

  

পিএনএস, পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয়া দুর্গাপূজা। দুর্গোৎসবকে কেন্দ্র করে এখন মন্দির ও মন্ডপ গুলোতে চলছে প্রতিমার তৈরির কাজ। রঙ আর তুলির আঁচড়ে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে প্রতিমা। ব্যস্ততা বেড়েছে প্রতিমা ভাষ্করদের। ডেকোরেশন কর্মীরাও সাজ সজ্জায় ব্যস্ত। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ঘরে ঘরে শুরু হয়েছে নতুন পোশাকসহ ঘরের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনাকাটার কাজ। কেউ আবার অগ্রিম শুভেচ্ছাসহ নিমন্ত্রণ দেয়ার কাজও ইতোমধ্যে শুরু করে দিয়েছেন।

খুলনার পাইকগাছা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আনন্দ মোহন বিশ্বাস জানান, উপজেলায় ১৪৯টি মন্দির ও মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি চলছে। একটি পৌরসভাসহ ১০টি ইউনিয়নে ১৪৯টি মন্দির ও মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। পৌরসভায় ৭, হরিঢালী ২০, কপিলমুনি ১৯, লতা ১২, দেলুটি ১৩, সোলাদানা ১৩, লস্কর ১৬, গদাইপুর ৫, রাড়ুলী ২০, চাঁদখালী ১২ ও গড়াইখালী ইউনিয়নে ১২টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি চলছে।

উপজেলার কপিলমুনি কেন্দ্রীয় মিলন মন্দিরে প্রতিমা ভাষ্কর উত্তম শীল জানান, খুলনা, সাতক্ষীরা ও কুমিল্লা জেলায় মোট ৮টি মন্ডপে প্রতিমা তৈরী করছেন। সে সহ তার অন্যান্য সহকর্মীরা দিবারাত্রি প্রতিমা তৈরীর কাজ করে যাচ্ছেন। মাটির কাজ প্রায় শেষ হয়েছে; কোথাও কোথাও রঙের কাজ চলছে।

আগামী ৩ অক্টোবর বৃহস্পতিবার পঞ্চমীতে দুর্গাদেবীর বোধন অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে পূজা শুরু হবে। ৮ অক্টোবর মঙ্গলবার দশমীবিহিত পূজা সমাপনান্তে প্রতিমা বিসর্জ্জনের মধ্যেমে দুর্গোৎসবের আনুষ্ঠিকতা শেষ হবে।

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সমীরণ কুমার সাধু জানান, প্রতি পূজা মন্দির কমিটির সভাপতি ও সম্পাদকদের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে। শারদীয়া দুর্গোৎসবে সু-শৃংখল ও আনন্দ ঘণ পরিবেশে পূজা উদযাপনের জন্য প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পিএনএস/মো. শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech