জঙ্গলে কিশোরীর লাশ, মামি-মামাতো ভাই আটক

  

পিএনএস ডেস্ক : গাজীপুর সদর উপজেলার একটি জঙ্গল থেকে লুনা আক্তার (১৫) নামের এক কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার সকালে বিকেবাড়ী এলাকার জঙ্গল থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কিশোরীর মামি আকলিমা বেগম ও তাঁর ছেলে রবিউল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।

লুনা লালমনিরহাটের পাটগ্রাম থানার কুলসিবাড়ী এলাকার নবীউদ্দীনের মেয়ে। সে ছোটবেলা থেকেই গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বাহাদুরপুর এলাকায় মামির সঙ্গে থাকত। লুনা স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করত।

পুলিশ ও এলাকাবাসীর ভাষ্য, বৃহস্পতিবার রাতে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বাহাদুরপুর এলাকায় মামির বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে লুনা। পরে তার মামি ও মামাতো ভাই মরদেহ বিকেবাড়ী এলাকায় একটি জঙ্গলে ফেলে দেন। স্থানীয় লোকজন টের পেয়ে ঘটনাটি পুলিশকে জানায়। খবর পেয়ে পুলিশ লুনার মামি আকলিমা ও মামাতো ভাই রবিউল ইসলামকে আটক করে। পরে তাঁদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ওই জঙ্গল থেকে লুনার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তবে ঘটনাটি সন্দেহজনক। এটি হত্যাকাণ্ড হতে পারে বলে পুলিশ ধারণা করছে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. শহিদুল ইসলাম জানান, জিজ্ঞাসাবাদে লুনার মামি পুলিশকে জানান, রাতে লুনা আক্তারকে গালিগালাজ করা হয়েছিল। পরে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এ সময় ভয় পেয়ে তিনি ও তাঁর ছেলে মিলে মরদেহ ওই জঙ্গলে ফেলে দেন। লুনার গলায় দাগ রয়েছে। এটি হত্যা না আত্মহত্যা, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech