শেরপুর হানাদার মুক্ত দিবস আজ

  

পিএনএস, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার শেরপুর হানাদার মুক্ত দিবস আজ। অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধারা ১৯৭১সালের ১৪ডিসেম্বর তিনদিক থেকে আক্রমণ চালিয়ে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসরদের পরাস্ত করে আত্মসমর্পণে বাধ্য করেন। পরদিন বিজয় পতাকা উড়ানো হয়।

এদিকে বরাবরের মত শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস ও শেরপুর হানাদারমুক্ত দিবসকে ঘিরে বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি শেরপুর প্রেসক্লাবের উদ্যোগেও শহরের স্থানীয় বাসষ্ট্যান্ডস্থ সংগঠনের কার্যালয়ে এক আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছে।

স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ১৪ডিসেম্বর সকালে সারিয়াকান্দি থেকে মুক্তিযোদ্ধা বাচ্চু মিয়ার নেতৃত্বে সড়ক পথে দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে এবং ধুনট থেকে মুক্তিযোদ্ধা আকরাম হোসেন খাঁনের নেতৃত্বে সশস্ত্র মুক্তিযোদ্ধারা শেরপুর শহরে অবস্থানরত পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসরদের ওপর একযোগে আক্রমন চালায়। একপর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধারা পাক হায়েনাদের পরাস্ত করে শেরপুর শহরকে মুক্ত করেন। আক্রমনের সময় পাকিস্তানী হানাদার ও তাদের দোসররা শহরের পার্শ্ববতী ঘোলাগাড়ী এলাকায় অবস্থান নেয়। পরে সেখানেও মুক্তিযোদ্ধারা আক্রমন চালায়।

একপর্যায়ে ঘোলাগাড়ীসহ পুরো এলাকাটি মুক্তিযোদ্ধারা নিয়ন্ত্রনে নেন। এসময় ওই এলাকার বেশকিছু স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকাররা মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। পরদিন ১৫ডিসেম্বর পার্ক মাঠে মরহুম আমান উল¬াহ খানের নেতৃত্বে (বর্তমানে মহিলা কলেজ) স্বাধীনতার বিজয় পতাক উত্তোলন করা হয়।

পিএনএস/মো. শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech