বরগুনায় স্ত্রী নির্যাতনের দায়ে পুলিশ কনস্টেবল গ্রেপ্তার

  

পিএনএস ডেস্ক : বরগুনায় স্ত্রী নির্যাতনের ঘটনায় সাখাওয়াত নামের এক পুলিশ কনস্টেবলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে বরগুনা থানায় নারী নির্যাতনসহ বিভিন্ন ধারায় মামলা (নং ১৪) দায়ের করেছেন নির্যাতিত স্ত্রীর পিতা জেলার ছোট তালতলীর বাসিন্দা কবির খলিফা (৪৫)।

ভুক্তভোগী পিতা কবির খলিফা পেশায় একজন দরিদ্র জেলে। তিনি বলেন, সাগরে মাছ ধরে কোনোমতে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলেন তিনি। তার তিন মেয়ের মধ্যে বড় মেয়ে মোসাঃ রাবেয়া আক্তারকে তিনি কষ্ট করে লেখাপড়া করাতেন। সদর উপজেলার ডিএন কলেজে এইচএসসিতে লেখাপড়া করতো তার মেয়ে। পুলিশ কনষ্টেবল সাখাওয়াত হোসেন তার পূর্বের দুই বিয়ের কথা গোপন করে তার মেয়েকে ফুসলিয়ে বিয়ে করে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই তার মেয়েকে শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে সাখাওয়াত। শুধু নির্যাতন করেই ক্ষান্ত নয় তার প্রেমিক ও সাঙ্গ-পাঙ্গ নিয়ে তার মেয়ের ওপর যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে আসছিল সাখাওয়াত।

ভুক্তভোগী পিতা কবির খলিফা আরো জানান, অনোন্যপায় হয়ে এসব বিষয়ে বরগুনার পুলিশ সুপার মোঃ মারুফ হোসেনের কাছে বিচার চেয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তার কঠোর নির্দেশে বরগুনা থানার ওসি মোহাম্মদ আবির হোসেন কনষ্টেবল সাখাওয়াতকে গ্রেপ্তার করে। পরে নারী নির্যাতন আইনের ১১(খ)/৩০তৎসহ ৩৮৪ ধারায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

এ ব্যাপারে বরগুনার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আবির হোসেন বলেন, অপরাধী যেই হউক না কেন আইনের উর্ধে কেউ নয়। তাকে শাস্তি পেতে হবেই। সাখাওয়াত পুলিশ বাহিনীর সদস্য হলেও তাকে ছাড় দেওয়া হয়নি।

তিনি আরো বলেন, থানায় আটক অবস্থায় উচ্চশৃঙ্খল আচরণ ও আইন লঙ্ঘন করার কারণে প্রাথমিকভাবে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় কনস্টেবল সাখাওয়াতকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech