পালিয়ে যাওয়া সন্দেহভাজন করোনার রোগীকে খুঁজতে জিডি

  

পিএনএস ডেস্ক : পাবনা জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে সন্দেহভাজন এক করোনা রোগীর পালিয়ে গেছেন।

বুধবার হাসপাতাল থেকে ওই রোগী পালিয়ে যাওয়ার পর সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে কর্তৃপক্ষ।

পালিয়ে যাওয়া ওই ব্যক্তির বাড়ি দিনাজপুরের হালিশপুর থানার হাকিমপুর গ্রামে। ৫ এপ্রিল তিনি জ্বর, সর্দি কাশি, শ্বাসকষ্ট ও মাথা ব্যথা নিয়ে পাবনা বেড়া উপজেলার আমিনপুর থানাধীন কাশিনাথপুর এলাকায় শশুর বাড়িতে আসেন। শ্বশুর বাড়ির স্বজনেরা তার শরীরে করোনার লক্ষণ দেখে স্থানীয় পুলিশের মাধ্যমে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

পরে ওই ব্যক্তিকে করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার চিকিৎসা শুরু করে বলে জানান পাবনা জেলারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আবুল হোসেন।

ডা. আবুল হোসেন বলেন, ওই রোগী চিকিৎসা সেবা নেওয়ার দুইদিন পরে বুধবার রাতে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে পালিয়ে যান। আমরা নিয়ম মাফিক ২৪ ঘণ্টা অপেক্ষা করে ওই রোগীর পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় পাবনা সদর থানায় সাধারণ জিডি করি। ওই রোগীর নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহীতে পাঠানো হয়েছে। তবে তার ফলাফল এখনা পাওয়া যায়নি।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ বলেন, এই ঘটনায় পাবনা জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সদর থানায় একটি জিডি করেছে। আমরা পলাতক রোগীর তথ্য ও ঠিকানা অনুযায়ী সকল স্থানে খোঁজ-খবর নিচ্ছি। তার গ্রামের বাড়ির দিনাজপুর জেলার হালিশপুর থানাতে বিষয়টি জানানো হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি তাকে উদ্ধারের জন্য।

পাবনায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সিভিল সার্জন ডা. মেহেদী ইকবাল জানান, চলতি মাসে এখন পর্যন্ত সন্দেহভাজন মোট ৪১ জনের নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী মেডিকেলকলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ১৯ জনের পরীক্ষার ফলাফল পাওয়া গেছে। তাদেরা মধ্যে কেউ করোনা ভাইরাস রোগে আক্রান্ত হননি। আরো ২২ জনের ফলাফল এখনো আসেনি।

তিনি বলেন, ওই পালিয়ে যাওয়া রোগীর নমুনা রাজশাহীতে পাঠানো হয়েছে। তার ফলাফল এখনো আমরা পাইনি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন