স্ত্রীসহ স্কয়ারে ভর্তি কাউন্সিলর খোরশেদ, পাশে দাঁড়ালেন শামীম ওসমান

  



পিএনএস ডেস্ক : করোনাকালে ৬১ লাশ দাফন-কাফন করে করোনায় আক্রান্ত হওয়া আলোচিত কাউন্সিলর ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সভাপতি মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ ও তার স্ত্রীর পাশে দাঁড়িয়েছেন নারায়ণগঞ্জের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান।

তিনি খোরশেদ ও তার স্ত্রীর শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নিয়েছেন। পাশাপাশি চিকিৎসা কার্যক্রমে পরামর্শ ও সহায়তা দিয়ে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি ব্যাবস্থাও করে দিয়েছেন।

রোববার বিকেলে খোরশেদের স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনার অবস্থা বেশি খারাপ হলে সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের পরামর্শ ও সহযোগিতায় তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এর আগে সকাল থেকে সাজেদা ফাউন্ডেশনে তার স্ত্রীর অবস্থা অবনতি হতে থাকে। তিনি অক্সিজেন সাপোর্টে চলে যান। সকাল থেকেই হাসপাতালে একাধিকবার ফোন করে তাদের খোঁজখবর নেন এ সংসদ সদস্য।

সাজেদা ফাউন্ডেশনের ম্যানেজার (পিআরও) ওবায়দুল্লাহ জানান, এমপি সাহেব সকাল থেকেই কয়েকবার ফোন দিয়ে খোঁজখবর নিয়েছেন। তার স্ত্রীকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এমপির উদ্যোগে।

এ ছাড়া সকাল থেকে বিভিন্ন দূতাবাস ও সরকারি-বেসরকারি দপ্তর থেকে শুভাকাঙ্ক্ষীরা তার ও স্ত্রীর খোঁজখবর রাখছেন। বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থাও তাদের শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর রাখছেন বলে খোরশেদ জানিয়েছেন।

২৩ মে করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হন কাউন্সিলর খোরশেদের স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনা। এরপর শনিবার নিজেও করোনায় আক্রান্ত বলে জানতে পারেন খোরশেদ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রবিবার বিকেলে কাউন্সিলর খোরশেদ বলেন, করোনা নিয়ে কোনো রাজনীতি নয়। এটা মানবতা প্রদর্শনের সময়। এমপি শামীম ওসমান আমার স্ত্রীর অবস্থা সংকাটাপন্ন শুনে মোবাইল ফোনে রবিবার দুপুরে যোগাযোগ করে স্কয়ার হাসাপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভর্তি হওয়ার ব্যবস্থা করেছেন। এমপি বলেছেন, খোরশেদ তুমি দ্রুত তোমার স্ত্রীকে নিয়ে স্কয়ারে চলে যাও। এটা রাজনীতির সময় নয়। এটা একে অপরের পাশে দাঁড়ানোর সময়। তুমি যেভাবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছো। তোমার এলাকার জনপ্রতিনিধি হিসাবে আমারও দায়িত্ব তোমার ও তোমার স্ত্রী পাশে দাঁড়ানো।

খোরশেদ আরো বলেন, দয়া করে এ নিয়ে কোনো রাজনীতি করবেন না প্লিজ। আমি বিএনপি করি। শামীম ওসমান আওয়ামী লীগের এমপি। এখানে কে কোন দলে করে। কার প্রতি কে সহাযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিল এগুলো নিয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষণ করবেন না। এখন মানবতার সময়।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান রবিবার বিকেলে জানান, আমি সবার আগে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আল্লাহর। পরে বলব আমাদের প্রধানমন্ত্রী ও আমার মাতৃতুল্য নেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ ছিল- কে কোন দল করে তা নয়। করোনায় মানবতার ভালোবাসা পৌঁছে দিতে হবে বাংলার প্রত্যেকটি ঘরে। খোরশেদ কোন দল করে এটি কোনো বিষয় নয়। সেও মানুষের সেবায় অনেক কাজ করে যাচ্ছে। দলমত নির্বিশেষে এখন দেখার বিষয় হচ্ছে ওর স্ত্রীর অবস্থা ভালো নয়। আর সেই পরিস্থিতিতে আমাদের সবার উচিত বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান। এটা আমার ও সবার দায়িত্ব।

তিনি স্কয়ার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অঞ্জন চৌধুরীর প্রতি কৃতজ্ঞা প্রকাশ করে বলেন, শুধু খোরশেদ ও তার স্ত্রী এই দুই রোগীর বিষয়ে নয়, এই হাসপাতালটি করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছে। অন্যান্য রোগী পাঠিয়েও আমি সহযোগিতা পেয়েছি এই হাসপাতালটি থেকে। তাদের প্রতি মনের গভীর থেকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

এ নিয়ে কবিরুল ইসলাম নামে ফতুল্লার এক বাসিন্দা ফেইজবুর স্ট্যাটাসে লিখেন, 'রাজনীতিটা মাঠেই হওয়া দরকার, দেশের ক্রান্তিকালে নয়- সেটা প্রমাণ করলেন নারায়ণগঞ্জ -৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান। করোনায় আক্রান্ত হয়ে "মানবতার ফেরিওয়ালা" খ্যাত নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সভাপতি, সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের সহধর্মিনী লুনা ভাবির জন্য যখন আইসিইউর জন্য চেষ্টা করা হচ্ছিল, তখন এই পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে মানবতার উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন সাংসদ শামীম ওসমান। কোনো রাজনীতি নয়, মানবতাই এখানে প্রকৃত উদাহরণ। দুইজন দুই মেরুর। কিন্তু খোরশেদ ভাই ও তার স্ত্রীর পাশে দাঁড়িয়ে অনন্য নজির স্থাপন করলেন আমাদের সাংসদ। ধন্যবাদ নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্যকে। আর মনেপ্রাণে দোয়া করি খোরশেদ ভাই ও তার পরিবারের জন্য। ফিরে আসুন আমাদের মাঝে। করোনার এ মহামারিতে যে কাজ আপনি/আপনার টিম করেছেন, তা দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন'।

পিএনএস/জে এ


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন