মাওলানা আনাসকে অব্যাহতির ঘোষণা

  


পিএনএস ডেস্ক: চট্টগ্রামের হাটহাজারীর দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদরাসার শিক্ষক ও শিক্ষাসচিব মাওলানা আনাস মাদানিকে মাদ্রাসা থেকে অব্যাহতির ঘোষণা দেয়া হয়েছে। বুধবার রাতে মাদ্রাসা পরিচালনার শূরা কমিটির সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে অব্যাহতির ঘোষণা দেয়া হয়।

আনাস মাদানি মাদ্রাসাটির মহাপরিচালক ও হেফাজত ইসলামের আমীর শাহ আহমদ শফীর ছেলে। আনাস হেফাজত ইসলামের প্রচার সম্পাদক।

আল্লামা শাহ আহমদ শফির সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন হাটহাজারী মেখল মাদরাসার মাওলানা নোমান ফয়জী, ফটিকছড়ি নানুপুর মাদরাসার মাওলানা সালা উদ্দিন নানুপুরী, চট্টগ্রাম মুজাহিরুল উলুম মাদরাসার মাওলানা ওমর ফারুক, কক্সবাজার চকোরিয়া মাদরাসার মাওলানা সোয়াইব নোমানী, হাটহাজারী ফতেপুর মাদরাসার মাওলানা মাহমুদুল ইসলাম ও হাটহাজারী মাদরাসার মুফতি জসিম উদ্দিন।

পাঁচদফা দাবি নিয়ে গতকাল দুপুরে আন্দোলন শুরু হওয়ার সাথে সাথে মাদরাসার সব গেট বন্ধ করে দেয়া হয়। ভিতরের কেউ বাহিরে, আবার বাহিরের কেউ ভিতরে আসা যাওয়া বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। আইন শৃংখলা বাহিনীর পুলিশ, র্যা ব ও গোয়েন্দা সদস্যরা মাদরাসার বাহিরে অবস্থান করলেও ভিতরে প্রবেশের সুযোগ ছিল না। মাদরাসার ভিতরে অবস্থানরত প্রায় ছয় সহস্রাধিক ছাত্র এ আন্দোলনে যোগ দিয়েছে। এসময় মাদরাসার মাইক ছিল ছাত্রদের নিয়ন্ত্রণে। ছাত্র নেতৃবৃন্দ মাইকে তাদের দাবিগুলো উচ্চারণ করে বক্তব্য রাখতে শুরু করলে মাদরাসার বাইরেও জড়ো হওয়া সহস্রাধিক ছাত্র তাদের দাবির সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে। এমন পরিস্থিতিতে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ চট্টগ্রাম অঞ্চলের শুরা সদস্যদেরকে নিয়ে রাতে জরুরি বৈঠকে বসেন। সে জরুরি বৈঠকে ছাত্রদের দাবি নিয়ে তিনটি সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়।

এর মধ্যে প্রথম সিদ্ধান্ত দারুল উলুম হাটহাজারী থেকে মাওলানা আনাস মাদানিকে স্থায়ীভাবে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

দ্বিতীয় সিদ্ধান্ত আন্দোলনকারী ছাত্রদের কোনো ধরণের হয়রানি করা হবে না এবং ভর্তি নিয়ে যাদের হয়রানি করা হয়েছে, তারা ভর্তির সুযোগ পাবে।

তৃতীয়টি হলো ছাত্রদের বাকি দাবি পূরণ করার জন্য আগামী ২১ সেপ্টেম্বর শনিবার মাদরাসার পূর্নাঙ্গ শুরা অধিবেশন ডাকা হবে।

ছাত্রদের পাঁচ দফা হচ্ছে আল্লামা শফিপুত্র মাওলানা আনাছ মাদানীকে অব্যাহতি দেয়া, মাদরাসার ছাত্রদের প্রাতিষ্ঠানিক সুযোগ-সুবিধা বাস্তবায়ন করাসহ সব ধরণের হয়রানি বন্ধ করা, আল্লামা আহমদ শফি সাহেব মাজুর হওয়ায় পরিচালকের পদ থেকে সম্মানজনক অব্যাহতি দিয়ে উপদেষ্টা বানানো, মাদরাসার উস্তাদদের (শিক্ষক)পূর্ণ অধিকার ও বিয়োগ নিয়োগকে শুরার নিকট ন্যাস্ত করা এবং বিগত শুরার হক্কানী আলেমদেরকে পূনর্বহাল ও বিতর্কীত সদস্যদেরকে পদচ্যুত করা।

এদিকে যে কোনো ধরণের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মাদরাসার সামনে অবস্থান নিয়েছেন বিপুল সংখ্যাক পুলিশ ও র্যামব সদস্য।

মাদরাসায় ছাত্র আন্দোলনের খবর শোনে চট্টগ্রাম নগর থেকে এসে হাটহাজারীতে অবস্থান করেছেন চট্টগ্রামের এসপি এসএম রাশেদুল হক, মশিউদৌলা রেজা, এডিশনাল এসপি (ডিবি) মহি উদ্দিন কাশেম, রাঙুনিয়ার এডিশনাল এসপি শামীম আনোয়ার ও র্যাএবের সিপিবিএ-২ এর প্রধান মশিউর রহমান।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন