কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় অন্তঃসত্ত্বার গায়ের হাত তুললেন স্বাস্থ্যকর্মী!

  

পিএনএস ডেস্ক : বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার কামারপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিকে এক অন্তসত্ত্বা নারীকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে সেখানকার দায়িত্বরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) মোফাজ্জল হোসেনের (৩৮) বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে শাজাহানপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ভুক্তভোগী নারী জানান, তিনি পাঁচ মাসের অন্তসত্ত্বা। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে কামারপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিকে ওষুধ আনতে যান। এ সময় সেখানকার দায়িত্বরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার মোফাজ্জল হোসেন তাকে একা পেয়ে বাজে কথা বলেন এবং কুপ্রস্তাব দেন। এতে রাজি না হলে এক পর্যায়ে ওই নারীর গায়ে হাত তোলেন এবং ধাক্কা মেরে ক্লিনিক থেকে বের করে দেন মোফাজ্জল। বিষয়টি জানতে পেরে ভুক্তভোগীর স্বামী ক্লিনিকে গিয়ে মোফাজ্জল হোসেনের কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে অতর্কিতভাবে তাকেও মারধর করেন তিনি।

এদিকে কামারপাড়া গ্রামের বাসিন্দাদের অভিযোগ, ক্লিনিকে ওষুধ আনতে গেলে মোফাজ্জল হোসেন ওষুধ না দিয়ে বিভিন্ন ধরনের তালবাহানা করেন। এমনকি তার চরিত্রও ভালো না। ওই ক্লিনিক থেকে মানুষ ঠিক মতো সেবা পায় না।

তবে মোফাজ্জল হোসেন এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘কারও সাথে দুর্ব্যবহার করা হয়নি। বরং ওই নারীর স্বামী ক্লিনিকে এসে আমাকে মারধর করেছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগও করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে শাজাহানপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোতারব হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি জানতে পেরে তদন্তের জন্য একজন মেডিকেল অফিসারকে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে দাপ্তরিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিম উদ্দীন বলেন, অভিযোগ তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন