নিখোঁজের দুদিন পর নদীতে ভেসে উঠল স্কুলছাত্রীর লাশ

  

পিএনএস ডেস্ক : ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পরদেশী পাড়ায় নিখোঁজের দুদিন পর খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের স্বপ্না দাস নামে এক স্কুলছাত্রীর মরদেহ তীরনই নদী থেকে উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী। স্বপ্না মধুপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। রবিবার সকালে বাড়ির পাশে তীরনই নদীতে তার মরদেহ ভেসে ওঠে।

পরিবারের বরাত দিয়ে চাড়োল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দিলিপ কুমার চ্যাটার্জী জানান, পাত্রটি পরেছিল। বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তার সন্ধান মেলেনি। রবিবার সকালে বাড়ি পাশে তীরনই নদীতে মরদেহ ভেসে উঠলে স্থানীয়রা উদ্ধার করে। পরে স্থানীয়রা বালিয়াডাঙ্গী থানায় খবর দিলে দুপুরে পুলিশ মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রেরণ করে।

চেয়ারম্যান দিলিপ কুমার চ্যাটার্জী আরো জানান, এটি ধর্ষণের ঘটনা হতে পারে বলে সন্দেহ হচ্ছে। কারণ মেয়েটিকে অপহরণ করার পর হয়তো তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। ধর্ষকের একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদণ্ড এই ভয়ে ধর্ষকরা হয়তো নিজেরা বাঁচার জন্য তাকে হত্যা করে নদীতে ফেলে রেখে গেছে। তার দুই দিন ধরে নিখোঁজ থাকার বিষয়টি এই সন্দেহ জাগায়।

ভোটপাড়া ক্যাথলিক চার্জের দায়িত্বে থাকা খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ফাদার লাজারুশ সরেন জানান, প্রতিবেশীদের কাছ খেকে জানা যায় স্বপ্না দাসের সঙ্গে অন্য সম্প্রদায়ের একটি ছেলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এই বিষয়টি স্বপ্নার পরিবারের অন্যান্যরা মেনে নিতে পারে নাই, এটি একটি কারণ হতে পারে।

কারণ, নদীর যে স্থানে মরদেহ পাওয়া গেছে সেখানে শনিবার বিকালে ও সন্ধ্যায় জেলেরা মাছ ধরেছে। তখন সেখানে কোনো কিছুই ছিল না, অথচ পর দিন সকালে সেখানে মরদেহ পাওয়া গেল যা খুবই সন্দেহজনক। তাছাড়া যেখানে মরদেহ পাওয়া গেছে সে স্থানটি শুধু বালু কোনো ধরনের কাঁদামাটি নেই, অথচ মৃতার সারা শরীরে কাঁদামাটি মাখা পাওয়া গেছে এবং বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে।

সুরতহালের দায়িত্বে থাকা বালিয়াডাঙ্গী থানার এসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আজিজুর রহমান জানান, মরদেহ নদীতে থাকায় শরীর ফুলে গেছে। প্রাথমিকভাবে শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায় নাই। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। সোমবার ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি হাবিবুর হক প্রধান জানান, এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে একটি ইউডি মামলা করা হয়েছে। তদন্তে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন