১৪ বছর কারাভোগ, মুক্ত হয়েই ভাই-ভাবিকে কোপ

  

পিএনএস ডেস্ক : বরিশালের হিজলা উপজেলায় ১৪ বছর কারাভোগ শেষে জেলখানা থেকে বেড়িয়ে ভাই ও ভাবিকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে নুরু বাবুর্চি নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। গতকাল শনিবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার গুয়াবাড়ীয়া ইউনিয়নের কোড়ালিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন-ওই গ্রামের মো. দুলাল বাবুর্চি ও তার স্ত্রী নিলুফা বেগম। পরে তাদের উদ্ধার করে স্বজনরা শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে। দুলালের বাম পা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে এবং অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে পুলিশ।

হিজলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অসীম কুমার সিকদার এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘হামলাকারী নুরু বাবুর্চির বিরুদ্ধে হিজলাসহ বিভিন্ন থানায় ডাকাতি, অস্ত্র এবং কুপিয়ে জখমের একাধিক মামলা রয়েছে। সম্প্রতি নুরু একটি অস্ত্র মামলায় ১৪ বছর সাজা খেটে কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে বাড়ি ফেরে।’



স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি জানান, শনিবার রাত ৮টার দিকে দুলাল বাবুর্চি স্থানীয় কাউরিয়া বাজার থেকে নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। তিনি বাড়িতে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা তার ছোট ভাই নুরু বাবুর্চি ধারালো অস্ত্র দিয়ে দুলালের মাথায় আঘাত করেন। এতে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এরপর নুরু তার শরীরের বিভিন্নস্থানে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন। তার বাম পা কুপিয়ে প্রায় বিচ্ছিন্ন করে ফেলেন। এ সময় স্বামী দুলালকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে স্ত্রী নিলুফা বেগমও কুপিয়ে জখম করেন দেবর নুরু।

ওসি অসীম আরও বলেন, ‘নুরু বাবুর্চি দুধর্ষ সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। সম্প্রতি সে কারাগার থেকে মুক্ত হয়। কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে সে আবার আগের মতো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে ফিরে যায়। ঘটনার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং নুরুকে আটকের চেষ্টা চলছে।’

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন