নারায়ণগঞ্জে পাওনা টাকা আনতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার তরুণী

  

পিএনএস ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের বন্দরে পাওনা ৫ হাজার টাকা আনতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক পোশাক শ্রমিক তরুণী (২২)। ওই তরুণীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী মাসুদের বিরুদ্ধে। গতকাল রবিবার (১০ জানুয়ারী) সন্ধ্যায় কাইতাখালী এলাকার মমিন মিয়ার জমির পাশে নির্জন স্থানে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় রবিবার রাতেই ধর্ষিতা তরুণীকে মুমূর্ষ অবস্থায় ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোমবার (১১ জানুয়ারী) বন্দর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

জানা গেছে, নবীগঞ্জ বড়বাড়ী এলাকার বুলুমিয়ার ছেলে মাদক ব্যবসায়ী মাসুদ মিয়ার ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী একই সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ শহরের রিভারভিউ মার্কেটের একটি গার্মেন্টেসে কাজ করত। সে সুবাদে উভয়ের সঙ্গে পূর্ব পরিচিত ও সখ্যতা গড়ে উঠে। মাদক ব্যবসায়ী মাসুদ ওই তরুনীর কাছে কয়েকমাস পূর্বে ৫ হাজার টাকা ধার নেয় এবং বেতন পেলেই পরিশোধ করবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয়। পরে ওই তরুনী তার পাওনা টাকা চাইলে তাকে নবীগঞ্জ বড়বাড়ি এলাকায় দেখা করতে বলে মাসুদ। এর ধারাবাহিকতায় গতকাল রবিবার মাদক ব্যবসায়ী মাসুদ তার সহযোগী মিলন নামে একজনকে দিয়ে ওই তরুণীকে ফোন করে কাইতাখালী এলাকার মমিন মিয়ার জমিতে একটি কুঠুরিতে যেতে বলে।

ওই কিশোরী সেখানে গেলে মাদক ব্যবসায়ী মাসুদসহ তার কয়েকজন সঙ্গীর সহযোগিতায় ওই তরুণীকে নির্জনস্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে ধর্ষিতার শিকার ওই কিশোরী রিকশাযোগে নবীগঞ্জ ইস্পাহানী তার বোনের বাড়িতে আসলে তার বোন ও তার বোন জামাতা তাকে দ্রুত মুমূর্ষ অবস্থায় ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় বন্দর থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) তারিকুল ইসলাম বলেন, ধর্ষিতা ওই কিশোরীর চিকিৎসা চলছে। রাতেই হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীণ।

পিএনএস-জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন