চরফ্যাশন পৌর নির্বাচন: প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

  


পিএনএস ডেস্ক: আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ভোলার চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচন। এখানে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. মোরশেদ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শিকদার হুমায়ুন কবির এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মীর মোহাম্মদ শরীফ হোসেন।

শেষ মুহূর্তে প্রার্থীরা ভোটের মাঠ গোছাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ভোটারদের কাছে কুশল বিনিময়ে ভোট চেয়ে লিপলেট বিতরণ করছেন প্রার্থীরা।

কাল শুক্রবার রাত ১২টা থেকে সকল প্রকার প্রচার প্রচারণা বন্ধ হচ্ছে। গণমাধ্যমকর্মীদের যান ব্যতীত শনিবার থেকে শহরে সকল প্রকার যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। শেষ মুহূর্তে পাড়ায় মহল্লায়, অলি-গলিতে জমে উঠেছে নির্বাচন।

দিনরাত প্রার্থীরা ছুটছে ভোটারদের কাছে। শহরের আনাছে কানাছে ব্যানার- পোস্টার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে। চলছে গণসংযোগ মোটরসাইকেল মহড়া আর স্লোগান। মাইকে বাজছে মনকাড়া সুরে হরেক রকম গান।

আগামী রবিবারের ভোটকে ঘিরে চরফ্যাশনে আওয়ামী লীগ, বিএনপির জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতারা প্রতিনিয়ত গণসংযোগে অংশ নিচ্ছেন আর দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাচ্ছেন।

চরফ্যাশন পৌর নির্বাচনে এই প্রথম ইভিএমএ ভোট হবে। ভোটারদের কাছে এই পদ্ধতি নতুন, ফলে কিভাবে ভোট দিবে এ নিয়ে টেনশনে রয়েছে। এদিকে সহকারী রিটার্নি অফিসার কাল শুক্রবার চরফ্যাশনে দিনব্যাপী ইভিএমএ ভোটদান পদ্ধতি সম্পর্কে ভোটারদের প্রাক্ মহড়া আয়োজন করেছেন। শেষ মুহুর্তে জয় পেতে প্রার্থীরা ভোটারের বাড়ি বাড়ি দোকানে দোকানে ছুটছেন। ভোটারদের কাছে তুলে ধরছেন তাদের যোগ্যতা।

চরফ্যাশন পৌরসভায় নৌকা প্রতীকে নতুন প্রার্থী। তিনি চরফ্যাশন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। নৌকার মনোনীত প্রার্থী মো. মোরশেদ জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।

অপরদিকে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী সিকদার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির। তিনি বলেন, বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট আমাদের অনুকূলে নেই। জনগণের ব্যাপক সমর্থন আমাদের পক্ষে রয়েছে। অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট হলে আমার কাঙ্খিত বিজয় সম্ভব।

এদিকে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হয়েছেন মীর মোহাম্মদ শরীফ হোসেন। এলাকায় রয়েছে তার ব্যক্তি ইমেজ। তিনি একটি পলিটেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ। নারকেল গাছ প্রতীক নিয়ে তিনি লড়ছেন। জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী না হলেও শহরে নিজ পরিচিতি পেতে ভোটারদের মাঝে প্রতিনিয়ত গণসংযোগ করে যাচ্ছেন।

চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, নির্বাচনে পৌরসভা মেয়র প্রার্থী ৩ জন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর ২৩ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ভোট হবে ইবিএমএ। শেষ মুহুর্তে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া এলাকার পরিবেশ অনেকটা শান্ত রয়েছে। অবাদ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন