প্রবাসীর স্ত্রীর হাত ঝলসে দিলেন ‘প্রতিপক্ষ মা-মেয়ে’

  

পিএনএস ডেস্ক: পিরোজপুরের কাউখালীতে এক গৃহবধূকে শত্রুতার জেরে মারধর করে তরল দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপ করে ঝলসে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আজ শনিবার কাউখালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আহত গৃহবধূর নাম রেকসোনা বেগম (২৬)। তিনি উপজেলার পারসাতুরিয়া গ্রামের শহিদুল মীরের মেয়ে ও পাশের ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার ওমান প্রবাসী মো. হুমায়ূন কবিরের স্ত্রী।

আহত গৃহবধূ অভিযোগ করেন, তার স্বামী বর্তমানে ওমানে থাকায় তিনি বাবার বাড়িতেই থাকেন। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজেদের বাগানে জ্বালানী কাঠ সংগ্রহ করতে যান। সেখানে আগে থেকেই ওঁৎ পেতে থাকা একই গ্রামের হারুন অর রশিদের স্ত্রী বিউটি বেগম এবং তার দুই মেয়ে মালা আক্তার ও নুপুর বেগম তার ওপর চড়াও হন। কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে তাকে বেধড়ক মারধর করেন তারা।

একপর্যায় বোতলভর্তি উত্তপ্ত তরল দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপ করলে ওই গৃহবধূর ডান হাত ঝলসে যায়। তার চিৎকারে স্থানীয়রা এসে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অবস্থার অবনতি হলে আজ শনিবার সকালে তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ বিষয়ে কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক সুব্রত কর্মকার বলেন, ‘গৃহবধূর ডান হাত তরল দাহ্য পদার্থে ঝলসে গেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল মেডিকেলে স্থানান্তর করা হয়েছে।’

কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় কাউখালী থানায় আহত গৃহবধূর ভাই মিজান মীর বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন