১০ বছর প্রেমের পর বিয়ে, নববধূকে রাস্তায় রেখে পালালেন বর

  

পিএনএস ডেস্ক : ১০ বছর প্রেমের পর সালিসি বৈঠকে বিয়ে হয়েছে। এরপর নববধূকে বাড়িতে নেওয়ার পথে রাস্তায় রেখে বরের পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরের নলডাঙ্গা ইউনিয়নের নলডাঙ্গা এলাকায় গতকাল মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় চাতাল ব্যবসায়ী রেজাউনুল হক লিটনের ছেলে জাহিদ হাসানের (শোভন) সঙ্গে বিয়ে হয় সদর উপজেলার মহুরিপাড়া গ্রামের ইতি আক্তারের (ছদ্মনাম)।

স্থানীয়রা জানায়, গতকাল বিকেলে স্থানীয়দের উপস্থিতিতে নলডাঙ্গা ট্রাকচালক সমিতির কার্যালয়ে উভয়ের সম্মতিতে বিয়ে হয়। এরপর নলডাঙ্গা থেকে স্ত্রীকে নিয়ে গাইবান্ধা শহরের বাড়িতে যাচ্ছিলেন শোভন। সাদুল্লাপুরের কালিবাড়ি মন্দিরের পাশের রাস্তায় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়ার কথা বলে স্ত্রীকে বসিয়ে রেখে অটোরিকশা থেকে নেমে পালিয়ে যান তিনি।

ঘটনার পর থেকে শোভনের মোবাইল ফোন বন্ধ। কোনো উপায় না পেয়ে হয়ে রাত ১১টার দিকে সাদুল্লাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দেন নববধূ ইতি আক্তার।

তিনি বলেন, ‘১০ বছর ধরে শোভনের সঙ্গে আমার প্রেমের সম্পর্ক। কয়েকদিন আগে শোভন বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আমার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। বিয়ের দাবিতে তার এলাকায় গেলে পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়দের উপস্থিতিতে শোভন আমাকে বিয়ে করে। সেখান থেকে বাড়ি নেওয়ার পথে সাদুল্লাপুরে পৌঁছে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়ার কথা বলে পালিয়ে যায়। প্রেমের অভিনয় করে বিয়ের পর শোভন এমন প্রতারণা করবে বুঝতে পারিনি। এমন ঘটনার জন্য শোভনের কঠিন শাস্তি চাই আমি।’

লিখিত অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা। তিনি দৈনিক আমাদের সময়কে বলেন, ‘নববধূর অভিযোগ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছি। শোভনের অবস্থান চিহ্নিতসহ তাকে আটকের চেষ্টা চালাচ্ছি। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন