দেড় কিলোমিটার কাঁচা সড়কের ভোগান্তিতে সাত গ্রামের মানুষ

  



পিএনএস ডেস্ক: শেরপুরের নালিতাবাড়ী মরিচপুরান ইউনিয়নে মাত্র দেড় কিলোমিটার কাঁচা সড়কের জন্য ভোগান্তিতে সাত গ্রামের মানুষ। বর্ষা মৌসুম এলেই তাদের কষ্টের শেষ নেই। সামান্য বৃষ্টি এলেই গ্রামীণ এই কাঁচা সড়কে সব যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এলাকাবাসী জানায়, ১৯৮৫ সালে আবদুল খালেক মাষ্টার চেয়ারম্যান জনগুরুত্বপূর্ণ হিসেবে এই সড়কটি নির্মাণ করেন। এত বছর পেড়িয়ে গেলেও এই সড়কটি পাকা করা হয়নি। বর্ষাকালে কাদা সড়কে দুর্ভোগে পড়তে হয় সাত গ্রামের মানুষকে।

বর্তমানে যানবাহন চলাচল তো দূরের কথা, চলাচলও কষ্টকর হয়ে পড়েছে। তবুও প্রয়োজনের তাগিদে যাতায়াত করছে মানুষ। মরিচপুরান ইউনিয়ন পরিষদের ভবনটি গোজাকুড়া বুডগড় এলাকায় হওয়ায় হুসিখালের মুখ থেকে গিয়াস উদ্দিনের বাড়ী পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার কাঁচা সড়ক দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে প্রতিদিন খালভাংগা, ভোগাইরপাড়, কোন্নগড়, ফকিরপাড়াসহ সাতটি গ্রামের মানুষের যাতায়াত করতে হয়। এছাড়াও নালিতাবাড়ী বাজারে আসতে হলেও এই সড়ক দিয়েই চলাচল করতে হয়।

ভোগাইরপাড় গ্রামের আবুল কাশেম(৬০) বলেন, 'বৃষ্টি হলেই এই রাস্তায় চলাচল করা খুব কষ্ট হয়। বাজারে ধান নিয়া গেলে ভাড়া দ্বিগুন হয়ে যায়। এই রাস্তা পাকা করে দেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে আমাদের অনুরোধ।'

এদিকে, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিক আহামেদ বলেন, 'ওই কাঁচা সড়কে এলাকাবাসীর অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়। তবে এলজিএসপি প্রকল্প থেকে খুব শীঘ্রই সড়কটি পাকাকরণের ব্যবস্থা করবো।'

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন