ফ্রিজে মাংস রাখা নিয়ে ছোটভাইয়ের আঘাতে বড়ভাই নিহত

  22-07-2021 03:34PM

পিএনএস ডেস্ক : কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলায় দোকানের ফ্রিজে কোরবানির মাংস রাখা নিয়ে দ্বন্দ্বে ছোটভাইয়ের আঘাতে নইমুদ্দিন (৫৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বুধবার ঈদের দিন সন্ধ্যা ৭টার দিকে বন্দবেড় ইউনিয়নের টাপুরচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নইমুদ্দিনের মেয়ে মর্জিনা খাতুন বাদী হয়ে রৌমারী থানায় অভিযুক্ত ছোট চাচা আব্দুল জলিলসহ চারজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন। এ পরিপ্রেক্ষিতে জলিলকে (৩৮) আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জলিলের দোকানের ফ্রিজে কোরবানির মাংস রাখতে যান তারই আরেক ভাই খলিল। কিন্তু জলিল এতে রাজি হননি। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

এর একপর্যায়ে বড়ভাই নইমুদ্দিন এসে মাংস রাখতে না দেওয়ায় জলিলকে গালিগালাজ শুরু করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পড়েন জলিল। দোকানে রাখা কাঠ দিয়ে নইমুদ্দিনকে এলোপাতাড়ি আঘাত করেন। তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

নইমুদ্দিনের মেয়ে মর্জিনা খাতুন বলেন, আমার বাবা আব্দুল জলিলের সৎভাই। তার সঙ্গে আগে থেকেই জমিজমা নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল।

রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, নিহতের মেয়ে চারজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। প্রধান আসামি জলিলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি কুড়িগ্রাম মর্গে পাঠানো হয়েছে।


পিএনএস/এসআইআর


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন